জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার ঘোষণা

|

সরকার গঠন করলে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতায় ভারসাম্য আনবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। একটানা দুই মেয়াদের বেশি প্রধানমন্ত্রী হতে পারবেন না কেউ। মতপ্রকাশ ও নাগরিকদের নিরাপত্তা বিধান করা হবে। এমন ১৪ প্রতিশ্রুতির নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করছে দলটি।

রাজধানীর পূর্বানী হোটেলে ইশতেহার প্রকাশের সূচনা বক্তব্য রাখেন ফ্রন্টের নেতা ডক্টর কামাল হোসেন। প্রতিশ্রুতিতে আরও আছে, মত প্রকাশের স্বাধীনতা রক্ষায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করা, রিমান্ডের পর পুলিশী হেফাজতে নির্যাতন বন্ধ করা। ক্ষমতার ভারসাম্যের ব্যাপারে ঐক্যফ্রন্টের প্রতিশ্রুতি হলো, নির্বাচনকালীন সরকারের বিধান তৈরী, নির্বাচন কমিশনকে পূর্ণ স্বাধীনতা দেয়াসহ মানুষের ভোটাধিকার প্রয়োগের অধিকার নিশ্চিত করা। সংসদে উচ্চকক্ষ সৃষ্টির পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে ঐক্যফ্রন্ট। সর্বসম্মতিতে সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদে পরিবর্তন আনার কথা বলেছে। এছাড়া ডেপুটি স্পিকার নির্বাচিত হবেন বিরোধী দল থেকে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার নেতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণফোরাম নেতা সুব্রত চৌধুরী, মোস্তফা মহসিন মন্টু প্রমুখ ও ড. রেজা কিবরিয়া প্রমুখ।









Leave a reply