টাংগাইলে ৮টি আসনে নৌকার মাঝি হতে চান ৭০জন

|

শামীম আল মামুন
আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য টাঙ্গাইলে আটটি আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র কিনেছেন অনন্ত ৭০ জন মনোনয়ন প্রত্যাশী। শুক্রবার (৯ নভেম্বর) থেকে রোববার (১১ নভেম্বর) সন্ধ্যা পর্যন্ত উৎসব মুখর পরিবেশে ঢাকায় তারা এই মনোনয়নপত্র কিনেন।
এদের মধ্যে প্রতিমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা, বর্তমান এমপি এবং জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের আওয়ামী লীগ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা রয়েছে। এ সময় তাদের সাথে নির্বাচনী এলাকার সমর্থিত নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

টাঙ্গাইল-১ (ধনবাড়ী-মধুপুর)- এ আসন থেকে মোট ৪ জন মনোনয়নপত্র কিনেছেন। মনোনয়নপত্র বিক্রির তৃতীয় দিনে রোববার (১১ নভেম্বর) এ আসনের বর্তমান এমপি ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীয় সদস্য ড. আব্দুল রাজ্জাক মনোনয়নপত্র কিনেছেন। এছাড়া মনোনয়নপত্র কিনেছেন- অভিনেতা সিদ্দিকুর রহমান, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপ-কমিটির সদস্য মাসুদ রানা এবং ব্যবসায়ী সবুজ তালুকদার মনোনয়নপত্র কিনেছেন।

টাঙ্গাইল-২ (ভূঞাপুর-গোপালপুর)- এ আসন থেকে ১৫ জন মনোনয়নপত্র কিনেছেন। এরা হলেন- বর্তমান এমপি খন্দকার আসাদুজ্জামান, বর্তমান সংসদ সদস্যের ছেলে মশিউজ্জামান রোমেল, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আশরাফুউজ্জামান স্মৃতি, জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক তানভীর হাসান ছোট মনি, গোপালপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইউনুস ইসলাম তালুকদার ঠান্ডু, গোপালপুর উপজেলার আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি খন্দকার গিয়াস উদ্দিন, ভূঞাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আব্দুল হালিম, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মুক্তিযোদ্ধা ড. নুরুন নবী, বীর মুক্তিযোদ্ধার রফিকুল ইসলাম, হারুনুর রশীদ বীর প্রতিক, অ্যাডভোকেট শামসুল আলম, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাবেক নেতা রফিকুল ইলমাম মঞ্জু, জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল লতিফ, একেএম শহিদুর রহমান এবং আসলাম খান।

টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল)- এ আসন থেকে ১০ জন আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র কিনেছেন। এরা হলেন- বর্তমান সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানা, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শিল্পপতি সৈয়দ আবু ইউসুফ আব্দুল্লাহ তুহিন, ঘাটাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক শহিদুল ইসলাম লেবু, ডেপুটি এ্যাটর্নি জেনারেল শহিদুল ইসলাম, তেজগাঁও বিশ^বিদ্যালয় কলেজের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ও সমৃদ্ধ ঘাটাইল ঢাকার আহ্বায়ক ড. অধীর চন্দ্র সরকার, সাবেক এমপি প্রয়াত ডা. মতিউর রহমানের ছেলে তানভীর রহমান, টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট এস আকবার খান, সোনালী ব্যাংকের পরিচালক মুক্তিযোদ্ধা ড. নুরুল আলম তালুকদার, সরকারি জিবিজি কলেজের সহকারী অধ্যাপক ওয়াহেদ শরিফ সিদ্দিকী।

টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী)- এ আসন থেকে ৫ জন মনোনয়নপত্র কিনেছেন। রোববার (১১ নভেম্বর) মনোনয়ন বিক্রির তৃতীয় দিনে এ আসনের বর্তমান এমপি হাসান ইমান খান সোহেল হাজারি মনোনয়নপত্র কিনেছেন। এছাড়া মনোনয়নপত্র কিনেছেন- কালিহাতী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান মোজহারুল ইসলাম তালুকদার ঠান্ডু, টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক সোলায়মান হাসান, এফবিসিসিআই’র পরিচালক ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা আবু নাসের এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ব্যবসায়ী ইঞ্জিনিয়ার লিয়াকত আলী।

টাঙ্গাইল-৫ (সদর)- এ আসন থেকে আওয়ামী লীগের ৭ জন মনোনয়নপত্র কিনেছেন। এ আসনের বর্তমান এমপি ছানোয়ার হোসেন মনোনয়নপত্র কিনেছেন। এছাড়া মনোনয়নপত্র কিনেছেন মনোয়ারা বেগম এমপি, টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জামিলুর রহমান মিরণ, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নাহার আহমেদ, প্রয়াত নেতা আব্দুল মান্নানের ছেলে আনিছুর রহমান শাহেদ, কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক মেহের নীগার তনময়, কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির অর্থ ও পরিকল্পনা কমিটির সহসম্পাদক জিয়াউল আবেদীন।

টাঙ্গাইল-৬ (দেলদুয়ার-নাগরপুর)- এ আসন থেকে ১৩ জন মনোনয়নপত্র কিনেছেন। এরা হলেন- তথ্য প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট তারানা হালিম, জেলা আওয়ামী লীগের শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক এবং ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের সাবেক সভাপতি আহসানুল ইসলাম টিটু, বর্তমান সংসদ সদস্য খন্দকার আব্দুল বাতেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাকিরুল ইসলাম উইলিয়াম, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ ও দেলদুয়ার উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ব্যারিষ্টার আশরাফুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাবেক সহসম্পাদক তারেক শামস খান হিমু, জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক ইনসাফ আলী ওসমানী, কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের সহ-সভাপতি কাজী এটিএম আনিসুর রহমান বুলবুল, নাগরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য শেখ আব্দুর রহিম ইলিয়াস, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সালাম প্রামানিক, কেন্দ্রীয় আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা লীগের সহ-সভাপতি হামিদুর রহমান ঝন্টু, জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক খোরশেদ আলম বাবুল, দেলদুয়ার উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা মাহমুদ উল্লাহ লিলু।

টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর)- এ আসন থেকে ৫ জন মনোনয়নপত্র কিনেছেন। এরা হলেন- স্থানীয় সংসদ সদস্য ও মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি একাব্বর হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনিবার্হী কমিটির সদস্য ও টাঙ্গাইল চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খান আহমেদ শুভ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মীর শরীফ মাহমুদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ ওয়াহিদ ইকবাল, টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা মেজর (অব.) খন্দকার আব্দুল হাফিজ।

টাঙ্গাইল-৮ (সখীপুর-বাসাইল)- এ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র কিনেছেন ১১ জন। এরা হলেন- বর্তমান সংসদ সদস্য অনুপম শাজাহান জয়, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের, সখীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত সিকদার, জাতীয় শ্রমিক লীগের সাবেক সভাপতি আব্দুস সালাম খান, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক প্রকৌশলী আতাউল মাহমুদ, প্রকৌশলী আসাদুল হক তালুকদার, অধ্যক্ষ আবু সাঈদ, আওয়ামী লীগ নেতা জুয়েল সরকার, আওয়ামী লীগ নেতা সরকার মোহাম্মদ আরিফুজ্জামান ফারুক, ডা. জুয়েল ও বাসাইল উপজেলা তাঁতী লীগের সভাপতি বদিউজ্জামান বিদ্যুৎ মনোনয়নপত্র কিনেছেন।









Leave a reply