রোহিঙ্গাদের নিয়ে আবারও বিষোদ্গার মিয়ানমার সেনাপ্রধানের

|

রোহিঙ্গাদেরকে ‘বাঙালি’ বলে অভিহিত করে আবারও এই জনগোষ্ঠির বিরুদ্ধে বিষোদ্গার করলেন মিয়ানমারের সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাই। আজ বৃহস্পতিবার মিয়ানমারে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত স্কট মার্সিয়েলের সঙ্গে বৈঠকে হ্লাই বলেন, “রোহিঙ্গা মুসলিমরা মিয়ানমারের জন্য ক্ষতিকর। তারা এদেশের মানুষ নয়। তাদের এদেশে আসার পেছনে সাবেক ব্রিটিশ ঔপনিবেশিই দায়ী।”

এছাড়া বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সংখ্যা গণমাধ্যম অতিরঞ্জিত করে প্রকাশ করা হচ্ছে বলেও দাবি করেন জাতিগত নিধনের অভিযোগে জাতিসংঘ কর্তৃক অভিযুক্ত এই জেনারেল।

মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সাথে আলোচনা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজের পেজে পোস্ট দেন মিন। তার ভিত্তিতে আজ রয়টার্স প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

এর আগে গত ১৬ সেপ্টেম্বর সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইয়াং বলেছিলেন, রোহিঙ্গারা স্বীকৃতি দাবি করছে অথচ তারা কখনো মিয়ানমারের নৃগোষ্ঠী ছিল না। এটি ‘বাঙালি’ ইস্যু। আর এই সত্য প্রতিষ্ঠায় একতাবদ্ধ হওয়া প্রয়োজন।

যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকে মিয়ানমারের সেনাপ্রধান বলেন, ‘তারা কোনোভাবেই মিয়ানমারের জনগোষ্ঠী নয়। নথিপত্র প্রমাণ করে, তারা কখনো রোহিঙ্গা নামেও পরিচিত ছিল না। ঔপনিবেশিক আমল থেকেই তারা বাঙালি ছিল। মিয়ানমার তাদের এ দেশে নিয়ে আসেনি। ঔপনিবেশিক আমলেই তারা এসেছিল।’

জাতিসংঘের মানবাধিকার দপ্তর গতকাল বুধবার বলেছে, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের উৎখাতে ঘরবাড়ি, শস্য ও গ্রাম পুড়িয়ে দিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী। এখন পর্যন্ত প্রায় পাঁচ লাখ রোহিঙ্গা প্রতিবেশী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।




Leave a reply