বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানের খুনি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

|

ব্যুরো প্রধান, বরিশাল।

বরিশালের উজিরপুর উপজেলায় পুলিশের সাথে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’   রবিউল আলম নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। নিহত রবিউল(৩৫) উজিরপুরের জল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিশ্বজিত হালদার নান্টুকে কাছ থেকে গুলি করে হত্যা করে বলে দাবি পুলিশের। রবিউল আলমের বাড়ি মাদারীপুর জেলায়। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ৬টি হত্যা মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

মঙ্গলবার সকালে বরিশালের পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম জানান, গত ২১ সেপ্টেম্বর শুক্রবার রাতে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ঢুকে জল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারমযান বিশ্বজিত হালদার নান্টুকে গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। কয়েক দিন আগে নান্টু হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় জিজ্ঞাসাবাদে রবিউলকে প্রধান ‘শুটার’ বলে স্বীকারাক্তি দেয় গ্রেপ্তারকৃতরা।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার রাতে অভিযান চালিয়ে মাদারীপুর থেকে গ্রেপ্তার করা হয় রবিউল আলমকে। এরপর তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে উজিরপুরের ফুলতলা এলাকায় ভোর রাতে অস্ত্র উদ্ধারে যায় পুলিশ। তবে যেখানে আগে থেকেই ওৎ পেতে থাকা সন্ত্রাসীরা রবিউলকে ছিনিয়ে নিতে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি করে।  এসময় রবিউল গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায়।

তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজে মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে ঘটনাস্থল থেকে ১ টি আগ্নেয়াস্ত্রসহ বেশ কিছু ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানান পুলিশ সুপার।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply