সংঘাতের চেয়ে সংলাপ উত্তম: মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল

|

সংলাপ বিষয়ে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, সংঘাতের চেয়ে সংলাপ উত্তম। আমরা আশাবাদী সংলাপের ভালো পরিণতি পাবে। সংলাপের ফলে একটা স্থায়ী রুপ পাওয়া যেতে পারে তাহলে আর বারবার এইরকম পরিস্থিতিতে পড়তে হবেনা। আজ সন্ধ্যা ৬টায় যমুনা টিভিতে প্রচারিত টকশো ‘রাজনীতি’তে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন তিনি। টকশোটির সঞ্চালনা করেন রোকসানা আনজুমান নিকোল।

মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল প্রথম দফার সংলাপের বিষয়ে বলেন, আমরা এখনো হতাশ নই। তবে নির্বাচন কমিশন তড়িঘড়ি করে ইভিএমের আইন সংশোধন, খালেদা জিয়াকে দুটি মামলায় সাজা দেয়া, নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে গায়েবি মামলা এগুলো সংলাপের জন্য প্রতিবন্ধক।

বিএনপির ৭ দফা দাবি নিয়ে তিনি জানান, বিএনপি অনেক চিন্তাভাবনা করে ৭ দফা দাবি দিয়েছে। ঐক্যফ্রন্ট ৭ দফা দাবি নিয়ে অনড় থাকলেও সরকার কিন্তু ৭ দফা ইস্যুতে ঘনঘন অবস্থান পরিবর্তন করতেছে। ওবায়দুল কাদের গতকাল পর্যন্ত বললেন আর সংলাপ হবেনা কিন্ত আজও তিনি বলেছেন ছোট আকারে হলেও সংলাপ হতে পারে।

এই একই টকশো’তে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খাবার দাবারের নিউজে কি আসে যায়! তার “ছোটলোক” বলা শব্দটা শিষ্টাচার বহির্ভূত। প্রধানমন্ত্রী তো বলেছেন গণভবন সকলের।

জাতীয় পার্টি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি বিরোধী রাজনৈতিক দল। তারা তত্বাবধায়ক সরকার বিশ্বাস করেনা। রাজনৈতিক দল হিসাবে তাদের নিজস্ব দাবি দাওয়া থাকতেই পারে। তিনি চলমান সংলাপকে সফল পরিণতিতে নেয়ার জন্য সকল কে আন্তরিক হতে পরামর্শ দিয়েছেন।

জেএসডির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক রতন বলেছেন, বৃহৎ পরিসরে সম্ভব হয়না তাই ক্ষুদ্র পরিসরে আমরা কথা বলার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছি। জনগণের দাবির প্রেক্ষিতে সংবিধান সংশোধন করাটাও সংবিধান সম্মত। আমরা বলেছি সীমিত পরিসরে পুনরায় সংলাপ না হওয়া পর্যন্ত নির্বাচনের তফসিল যেন ঘোষণা না করা হয়।

ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র পরিবর্তন প্রসঙ্গে তিনি বলেন আ স ম আব্দুর রব সময় দিতে না পারায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কে মুখপাত্রের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।









Leave a reply