সাকিবের ফেসবুক পোস্ট ও বড় বড় কোম্পানির ‘কমেন্ট মার্কেটিং’!

|

গতকাল সকালে ফেসবুকে নিজের একটা ছবি পোস্ট করেন সাকিব আল হাসান। তাতে দেখা যাচ্ছে, সোফায় হেলান দিয়ে বসে মোবাইলের স্ক্রিনে বেশ মনোযোগ দিয়েছেন এই অলরাইন্ডার। ছবিটির ক্যাপশন লিখেছেন, “ড্রাইভার গিয়েছে শিশিরকে ড্রপ করতে। কিন্তু আলাইনা চায় আইসক্রিম খেতে যেতে! কীভাবে যাই?”

একান্ত ব্যক্তিগত বিষয়ই মনে হচ্ছে। তারকাদের ব্যক্তিগত বিষয় আশয় নিয়ে ভক্তদের আগ্রহ থাকেই। ফলে, পোস্ট করার সাথে সাথে ভক্তরাও মজে গেলেন। দুই লাইনের পোস্টের শেষ লাইন “আলাইনা চায় আইসক্রিম খেতে যেতে! কীভাবে যাই?” একটা আফসোস ঝরে পড়ছে! আহা পিচ্চি বেচারি! একটা আইসক্রিম খেতে চেয়েও পারছেনা। খুব স্বাভাবিকভাবেই এই অদেখা ‘আফসোস’ ছুঁয়ে গেল সাকিব ভক্তদের। সবাই কমেন্ট করে নানা পরামর্শ দিতে থাকলেন। অথবা, কেউ শুধু কমেন্ট করে নিজের আফোসসটা প্রকাশ করলেন।

কিন্তু সময় যত গড়াচ্ছিল সাকিবের পোস্টের কমেন্ট থ্রেড ততই ‘স্বাভাবিক’ থেকে ‘অস্বাভাবিক’ হয়ে উঠছিল। ‘একটা বাচ্চার আইসক্রিম খেতে না পারার আফোসস’মূলক পোস্ট হয়ে উঠলো হাস্যরস আর ‘বিজ্ঞাপনের বিলবোর্ড’!

সাধারণ ক্রিকেটভক্তদের পাশাপাশি কমেন্ট করতে হুমড়ি খেয়ে পড়লো নানান ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, এমনকি বাঘা বাঘা কোম্পানিগুলোও! হুয়াওয়ে মোবাইল, বেস্ট ইলেক্ট্রনিক্স, উবার, পাঠাও, মোবাইল অপারেটর, আইসক্রিম কোম্পানি থেকে শুরু করে কে বাদ যায়নি কমেন্ট করতে? রোববার বিকাল পর্যন্ত সাড়ে ১৪ হাজারের বেশি কমেন্ট হয়েছে ওই পোস্টে। এর মধ্যে কম হলেও কয়েকশ’ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান অংশ নেয় ‘কমেন্ট মার্কেটিং’য়ে! সবাই সাকিবের পোস্টের সাথে সাজুয্য রেখে সাকিবকে পরামর্শ দিয়ে নিজের পণ্যের প্রতি (কমেন্ট করতে আসা অন্যদের) দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করছেন।

রাইড শেয়ারিংয়ের জনপ্রিয় মাধ্যম ‘পাঠাও’ এর ভেরিফায়েড পেইজ থেকে কমেন্ট করা হয়েছে, “হাই সাকিব! আপনার দরকার অলরাউন্ডার এপ। তাহলে আপনি পাচ্ছেন খাবার, কার, বাইক পারসেল এবং অনেক কিছু।
উবার লিখেছে,আমরা আপনাকে সাহায্য করতে চাই।”

রাইড শেয়ারিংয়ের অন্য প্রতিষ্ঠান উবার এর পেইজ থেকে তাদের সার্ভিসের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে কমেন্ট করা হয়েছে।

উবারের কমেন্টের প্রতি রসিকতা করে হোম গার্ডেন প্লান্টস লিখেছে, ‘উবার আপনাকে সময় অপচয়ের মোটিভেশন দিচ্ছে। গুগুল ম্যাপ বলছে, ঢাকার অধিকাংশ রাস্তায় এখন জ্যাম। তাই আপনি পাঠাও এর মাধ্যমে আইসক্রিম হোম ডেলিভারি নিয়ে নিন। আর এই সময়টুকু আপনি আলাইনাকে বাসার গাছগুলোর সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে পারেন।’

আবার একটি রেডিও লিখেছে, ‘বস, আপনি উবার কল করেন আর গাড়িতে উঠে ড্রাইভারকে বলেন এফ এম ৯৪.৪ টিউন করতে। অন এয়ারে আর জে অলরেডি আলাইনার জন্য আইসক্রিম অর্ডার করে গান গাইতেছে।’

হুয়াওয়ে মোবাইলের পেজ থেকে লেখে, ‘ধন্যবাদ আমাদের পাশে থাকার এবং আমাদের ফোন ইউজ করার জন্য।’ সম্ভব হুওয়ায়ে বুঝাতে চেয়েছে সাকিবের হাতের মোবাইলটির তাদের ব্রান্ডের।

ভক্তদের আফসোস আর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর নতুন ধরনের মার্কেটিং স্টান্টের মধ্যে আজ রোববার নতুন খবর এলো- বাংলাদেশে উবারের ব্রান্ড এম্বাসেডর হলেন সাকিব আল হাসান! আজই এই চুক্তি স্বাক্ষর হয়।

স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উবারের ভারত ও দক্ষিণ এশীয়ার প্রেসিডেন্ট প্রদীপ পরমেশ্বরণ, বলেন, ‘বাংলাদেশে উবারের ব্রান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে সাকিব আল হাসানকে পেয়ে আমরা আনন্দিত। গত কয়েক বছর ধরে সাকিব আল হাসান মাঠ ও মাঠের বাইরে বাংলাদেশিদের মধ্যে একজন রোল মডেল হিসেবে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। তার মাঝে আমরা এমন একজন পার্টনার পেলাম, যিনি সাধারণ মানুষের মাঝে ইতিবাচক পরিবর্তন, তাদের ক্ষমতায়ন ও জীবনমানের উন্নয়নে আমাদের আদর্শের প্রতিফলন ঘটাবেন।’

সাকিব নিজেও উবারের স্পন্সর করা টিশার্ট পরে একটি প্রমোশনাল ভিডিও নিজের ফেসবুক পেইজ আজ দুপুরে শেয়ার দেন। এই ভিডিও দেখে এবং উবারের সাথে নতুন এই চুক্তিতে স্বাক্ষরের খবর পেয়ে ভক্তদের হুশ আসে! আলাইনার আইসক্রিম না খেতে পাওয়ার আফসোসমূলত সাকিবের গতকালের পোস্টটি আসলে একটি মার্কেটিং স্টান্ট ছিল! এটাকে অনেকে ভালোভাবে নিতে পারেননি, আবার অনেকে নিয়েছেন স্রেফ মজা হিসেবে।

পোস্টে একজনের কমেন্ট, ‘মামারা চিপা দিয়ে ব্যবসাটা কইরা ফেললা!’


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply