ঢাবিতে মাদক সেবনের অভিযোগে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নেতাসহ অাটক ৩

|

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কবি জসিম উদ্দিন হলের সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতার রুম থেকে মাদক সেবন ও রাখার অভিযোগে দুইজন শিক্ষার্থী ও এক কর্মচারীকে প্রশাসনের সহযোগিতায় অাটক করেছে পুলিশ । এই সময় রুম থেকে মদের বোতল উদ্ধার করা হয়। মঙ্গলবার (৩০ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৭.৩০ টায় হলের ৩২১ নাম্বার কক্ষে এ ঘটনা ঘটে।

হল সূত্রে জানা যায়, ৩২১ নাম্বার রুমটিতে সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অাশিকুল পাঠান সেতু থাকেন। তিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী বলে এর আগে একটি দৈনিক পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়।

এ সময় তার রুম থেকে মাদক সেবনরত অবস্থায় অাটক করা হয় ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সহ-সম্পাদক শাহরিয়ার মাহমুদ রাজু, হল ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রমজান অালী এবং স্যার পি জে হার্টগ ইন্টারন্যাশনাল হলের কর্মচারী সুমন দে লাল।

আরও জানা যায়, শাহরিয়ার মাহমুদ রাজু ও হল ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রমজান অালী নিয়মিত হলে ইয়াবা এবং গাজা সেবন করে এবং কর্মচারী সুমন দে লালের সাথে মাদক বিক্রির সিন্ডিকেট গড়ে তুলে।

হল প্রশাসন অভিযোগ পেয়ে ওই রুমে অবস্থানকারী কর্মচারীসহ ৩ জনকে অাটক করে। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক অাশিকুল পাঠান সেতু এদেরকে দিয়ে মাদকের ব্যাবসা পরিচালনা করান বলে অভিযোগ রয়েছে।

উল্লেখ্য, কর্মচারী সুমন দে লাল কে ২০১৭ সালে মাদক বিক্রির অভিযোগে অারও একবার অাটক করা হয়েছিল৷

এ বিষয়ে জানতে চাইলে হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. রহমত উল্লাহ সাংবাদিকদের বলেন, অামরা অাজকে যাদের অাটক করেছি এদের ছাত্রত্ব শেষ৷ এদের বিরুদ্ধে মাদক বিক্রি এবং মাদক রাখার অভিযোগ রয়েছে৷ অভিযানের খবর টের পেয়ে জানালা দিয়ে কিছু মাদক ফেলে দেয় তারা৷ অামরা এ ব্যাপারে কোনো ছাড় দিব না৷ তবে হলে নিয়মিত অভিযান চলবেও বলে জানান তিনি।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply