আড়াইহাজারে নিহত চার জনকে মারলো কারা?

|

আলোচনা-সমালোচনার তুঙ্গে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের পুরিন্দা গ্রামে চার জনের মরদেহ উদ্ধারের ঘটনাটি। এনিয়ে মুখোমুখি অবস্থানে নিহতদের স্বজন আর আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। সুনির্দিষ্ট করে কিছু না বলতে পারলেও পুলিশের দাবি, নিহতদের নামে আছে বিভিন্ন অভিযোগ।

নিহত ফারুকের স্ত্রী জানান, আমার স্বামীকে থানায় ভাত দিয়ে আসছি, পরে বলে এই নামে কোনো আসামি ধরি নাই।অথচ পুলিশ বলছে, এমন কোন অভিযানই চালাননি তারা। কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি, ঘটেনি ‘বন্দুকযুদ্ধ’র কোন ঘটনাও।

নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলাম বলেন, মিথ্যা কথা বলছে স্বজনরা, আমরা অভিযান চালাইনি, ধরি নাই।

এলাকাবাসী বলছে, যারা ধরে নিয়ে গেছে তাদের গেঞ্জি ও প্যান্ট পরা ছিলেন। তারা নিজেদের ডিবি পুলিশের লোক বলে পরিচয় দিয়েছিলেণ। এছাড়া ধরে নিয়ে যাওয়া দুইজনের হাতে হ্যান্ডকাফ ছিলো।

নিহত চার জনের মধ্যে ফারুক সরদার, জহুরুল ও সবুজের বাড়ি পাবনার আতাইকুলায়। তাদের সাথে ধরে নিয়ে যাওয়া লিটন, এখনও নিখোঁজ। আতাইকুলা থানা পুলিশের দাবি, নিহতরা কেউই ভালো নয়। তবে, থানায় তাদের নামে কোন অভিযোগ আছে কিনা, সে বিষয়ে জানা নেই ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার।

ফারুক, জহুরুল বা সবুজের স্বজনদের আহাজারি দেখে নিখোঁজ লিটনের পরিবারের সদস্যরাও শঙ্কায়। তাদের ধারণা, একই পরিণতি হয়ত বরণ করতে হয়েছে লিটনকেও। রূপগঞ্জে বেওয়ারিশ হিসেবে দাফন হওয়া একটি মরদেহ লিটনের বলেও মনে করছেন তারা।









Leave a reply