মঙ্গল কামনায় প্রতিমা বিসর্জন

|

ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা ও দেশের মঙ্গল কামনার মধ্য দিয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বুড়িগঙ্গা নদীেত প্রতিমা বিসর্জন করা হয়।

বিসর্জন উপলক্ষে পলাশীর মোড় এলাকা থেকে ওয়াইজঘাট পর্যন্ত মানুষের ঢল নামে। এর মধ্য দিয়েই শেষ হল সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা।

দুপুর ৩টার আগে থেকেই ওয়াইজঘাটের বিনা স্মৃতি স্নানঘাটের উদ্দেশে রাজধানীর বিভিন্ন পূজামণ্ডপ থেকে ট্রাকে করে প্রতিমাসহ পূণ্যার্থীরা পলাশী এলাকায় উপস্থিত হতে শুরু করেন।

এর আগে সকাল থেকে মণ্ডপে মণ্ডপে শুরু হয় সিঁদুর খেলা। বিবাহিত নারীরা সিঁদুর নিয়ে একে অপরকে পরিয়ে দেন। পাশাপাশি ছিলো বিভিন্ন বয়েসী নারী-পুরুষের আবির খেলা।

বিকালে সর্বপ্রথম পলাশীর মোড়ে দুর্গার প্রতিমা নিয়ে উপস্থিত হয় আজিমপুর সার্বজনীন শারদীয় দুর্গোৎসব উদযাপন পরিষদ। এরপর ছিল খিলক্ষেত সনাতন সমাজ কল্যাণ সংঘসহ আরও বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত অন্যান্য প্রতিমা বাহিত ট্রাক ও ভক্তরা। তবে বিশাল বিসর্জন যাত্রার লাইনের শুরুতে ছিলো মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির ট্রাক।

এদিকে বিসর্জনের র্যালির চারদিকে র‌্যাব ও পুলিশ সদস্যদের কড়া নিরাপত্তা বলয় সৃষ্টি করে রাখতে দেখা গেছে।

রাজধানীর পাশাপাশি কক্সবাজার, রাজশাহী, সিলেট, বরিশাল, রংপুরসহ বিভিন্ন স্থানেও সন্ধ্যার আগে প্রতিমা বিসর্জন করা হয়।









Leave a reply