সাদুল্যাপুরে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে ছুরিকাঘাতে যুবককে খুন

|

গাইবান্ধা প্রতিনিধি:
গাইবান্ধার সাদুল্যাপুরে সমিতির টাকা ও ইয়াবাসহ পুলিশে ধরিয়ে দেয়ার জের ধরে হাবিবুর রহমান (২৮) নামে এক ব্যবসায়ীকে ছুরিকাঘাতে হত্যার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষ স্বাধীন ও এনামুুল নামে দুই যুবকের বিরুদ্ধে।

শুক্রবার (১৯ অক্টোবর) সকালে সাদুল্যাপুর উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের এনায়েতপুর দক্ষিণপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

নিজ বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে বাড়ির উঠানে প্রকাশ্যে স্বাধীন ও এনামুলসহ পরিবারের লোকজন হাবিবুরকে প্রথমে মারধর ও পরে বুকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে বলে অভিযোগ হাবিবুরের পরিবারের।

এঘটনায় অভিযুক্ত এনামুলের বাবা হামিদুর রহমান (৫৫) ও এনামুলের স্ত্রী সাথী বেগমকে (২৫) আটক করেছে পুলিশ। নিহত হাবিবুর রহমান এনায়েতপুর দক্ষিণপাড়ার আকবর আলীর ছেলে। হাবিবুরের নিজ বাড়ির অদুরে মুরগী ও মাছের খামার রয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, হাবিবুর, এনামুল, স্বাধীন ও তার ফুপাত ভাই রাসেল মিলে একটি সমিতি করে। সমিতিতে হাবিবুর ও রাসেল দুজনে ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা দিলেও এনামুল ও স্বাধীন টাকা দেয়নি। এনায়েতপুর বাজারের দৈনিক কিস্তিতে ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা বিভিন্ন ব্যবসায়ীকে দেয় তারা। ওই টাকা দৈনিক আদায় করতো এনামুল ও হাবিবুর। কিছুদিন আগে স্বাধীন ও এনামুলকে ইয়াবা সেবনের সময় পুলিশ আটক করে। জেল হাজত থেকে ছাড়া পেয়ে পুলিশে ধরিয়ে দেয়ার জন্য হাবিবুরকে সন্দেহ করে স্বাধীন ও এনামুল। অবিশ্বাস সৃষ্টির কারণে হাবিবুর সমিতিতে দেয়া টাকা ফেরত চাইলে স্বাধীন ও এনামুল তা দিতে অস্বীকার করে। এতে উভয়ের মধ্যে দ্বন্দ ও ক্ষোভ দেয়া দেয়। বিষয়টি সমাধানের জন্য শুক্রবার সকালে উভয়ের বসার কথা ছিলো। কিন্তু তার আগেই স্বাধীন ও এনামুল তাকে বাড়ি থেকে ডেকে বের করে উঠানেই ছুরিকাঘাত করে। পরে হাসপাতালে নেয়ার পথে মৃত্যু হয় হাবিবুরের।

হাবিবুরের চাচাত ভাই শামিম জানান, সকালে স্বাধীন ও এনামুল মোটরসাইকেলে করে হাবিবুরের বাড়িতে আসে। এরপর তারা হাবিবুরকে ডেকে নেয়। হাবিবুর বাড়ির উঠানে বের হতেই মারধর করে বুকে, পিঠে ও মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে ছুরিকাঘাত করে। তিনিসহ আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে স্বাধীন ও এনামুল ছুরি উচিয়ে ভয় দেখিয়ে চলে যায়। পরে ভ্যান যোগে হাসপাতালে নেয়ার পর হাবিবুর মারা যায়।

হাবিবুরের বাবা আকবর আলীর অভিযোগ, স্টাম্পে করে সমিতিতে টাকা দেয় হাবিবুর। সেই টাকা ফেরত চাইলে স্বাধীন ও এনামুল অস্বীকার করে। এছাড়া তাদেরকে পুলিশে ধরিয়ে দেয়া হয়েছে বলে হাবিবুরের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ তোলেন স্বাধীন ও এনামুল। বৃহস্পতিবার রাতেও এনায়েতপুর বাজারে হাবিবুরকে আটকের জন্য ধাওয়া করে এনামুল ও স্বাধীন। পরে দৌড়ে পালিয়ে আত্মরক্ষা করে হাবিবুর। এরপর পরিকল্পিতভাবে বাড়ি থেকে ডেকে বের করে হাবিবুরকে হত্যা করে তারা। এ ঘটনায় এনামুল ও স্বাধীনসহ জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্ত শাস্তির দাবি জানান তিনি।

সাদুল্যাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) এমরানুল কবীর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত এনামুলের বাবা ও স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। এনিয়ে হাবিবুরের পরিবারের পক্ষে সাদুল্যাপুর থানায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply