চাকরি হারিয়ে স্টেশনে স্টেশনে ঘুরছেন বিজিবি সদস্য

|

কামাল হোসাইন, নেত্রকোণা:

চাকরি থেকে বরখাস্তের প্রায় দেড় বছর পর বিজিবি সাবেক সদস্য হেদায়াতুল্লাহকে মানসিক ভারসাম্যহীন অবস্থায় ময়মনসিংহ রেলওয়ে স্টেশনে খুঁজে পেয়েছেন তার পরিবার। এসময়
স্বজনরা তার চাকরি ফিরিয়ে পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলার আংগারোয়া গ্রামের মরহুম গিয়াস উদ্দিন ভূঁইয়ার ছেলে হেদায়াতুল্লাহ। ২০১০ সালের ১৯ নভেম্বর বিজিবি’র সৈনিক হিসেবে যোগদান করেন তিনি।

হেদায়াতুল্লাহ বিজিবিতে যোগ দেয়ার কিছু দিন পরেই বিয়ে করেন। তখন থেকেই শুরু হয় সংসারে অশান্তি। তার স্ত্রী আর মায়ের মধ্যে প্রায়শই ঝগড়া বিবাদ হতো। এজন্য কিছু দিন পরপরেই সে বাড়িতে চলে আসত।

হেদায়াতুল্লাহর পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, ছুটি না নিয়ে হেদায়াতুল্লাহ বাড়িতে চলে আসায় ২০১৭ সালের ৭ মে কর্তৃপক্ষ তাকে চাকরিচ্যুত করে। চাকরি হারানোর দিন সে বাড়িতে এসে কিছুক্ষণ পর বাড়ি থেকে বেড়িয়ে যান। এরপর আর ফিরে আসেনি। তখন থেকেই সে পাগল হয়ে বিভিন্ন রেল স্টেশনে স্টেশনে ঘুরে বেড়ান।

শুক্রবার ময়মনসিংহ রেল স্টেশনে হেদায়াতুল্লাহর খোঁজ পেয়ে বাড়ি থেকে ছুটে আসেন তার স্বজনেরা। সেখান থেকে তাকে বৃুঝিয়ে শুনিয়ে বাড়ি নিয়ে যাওয়া হয়।

কেন্দুয়ার গড়াডোবা ইউনিয়নের মেম্বার মিলন মিয়া জানান, আমরা জানতাম হেদায়েতুল্লাহ চাকরি চলে যাওয়ার পর বিদেশ চলে গেছে। বর্তমানে কোথায় কিভাবে আছে জানিনা।

হেদায়েতুল্লাহ’র বিষয়ে জানতে চাইলে গুরুত্বর অসুস্থ তার মা ঝরিনা বেগম (৮০) জানান, অনেক দিন ধরে ছেলে কোথায় আছে জানি না। আমি ছেলেকে দেখতে চাই, ছেলের চাকরি ফিরে চাই।

স্ত্রী রোজিনা আক্তার জানান, পারিবারিক নানা সমস্যার বিষয়ে বিজিবিতে অভিযোগ করলে আমার স্বামীর চাকরি চলে যায়। অভাবের সংসারে চাকরি চলে যাওয়ার বিষয়টি স্বাভাবিকভাবে মেনে নিতে পারেনি আমার স্বামী। তখন থেকে সে পাগল হয়ে বাড়ি থেকে বেড়িয়ে যায়। আমরা অনেক খোঁজাখুজির পরে সাধারণ মানুষের কাছে জানতে পারি আমার স্বামী পাগলের মতো রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছে। এতোদিন তাকে খুঁজে পাইনি।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply