সিসি ক্যামেরা লাগিয়ে মাদক ব্যবসা! মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগের সভাপতি কারাগারে

|

গাইবান্ধা প্রতিনিধি
গাইবান্ধার সাদুল্যাপুরে নিজ বাড়িতে সিসি ক্যামেরা লাগিয়ে মাদক ব্যবসার অভিযোগে ইয়াবাসহ আটক আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগের সভাপতি আহসান হাবীব নাহিদকে (২৮) আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) দুপুরে সাদুল্যাপুর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলার পর নাহিদকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

এরআগে, সোমবার (৮ অক্টোবর) দুপুরে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‌্যাব-১৩, গাইবান্ধা ক্যাম্পের সদস্যরা অভিযান চালিয়ে সাদুল্যাপুর উপজেলা শহরের পশ্চিমপাড়ার নিজ বাড়ি থেকে তাকে আটক করে। এসময় তার সহযোগী আহাদ মিয়াকে (২৫) আটক করা হয়। অভিযানে নাহিদ ও আহাদের কাছ থেকে ৬৫ পিচ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

আহসান হাবীব নাহিদ সাদুল্যাপুর উপজেলা আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগের সভাপতি। নাহিদ পশ্চিমপাড়ার নুরুল আমিনের ছেলে। এছাড়া তার সহযোগী আব্দুল আহাদ মিয়া টিয়াগাছা ভবানীপুর গ্রামের মৃত্যু নেয়ামত আলীর ছেলে।

সাদুল্যাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) এমরানুল কবীর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, দীর্ঘদিন ধরে নাহিদ নিজ বাড়িতে ইয়াবা ব্যবসা করে আসছিলেন। সুচতুর নাহিদ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে নিরাপদে মাদক ব্যবসার জন্য নিজ বাড়ির প্রবেশমুখে সিসি ক্যামেরা লাগায়। মুলত সিসি ক্যামেরায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের গতিবিধি লক্ষ্য করা হতো। এছাড়া ২৪ ঘণ্টা সিসি ক্যামেরা চালু রেখে মাদক ক্রেতাদের প্রতিও নজরদারি করা হতো। সোমবার দুপুরে র‌্যাবের একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তার বাড়িতে অভিযান চালায়। অভিযানে নাহিদ ও তার সহযোগী আহাদকে আটক করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে ৬৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরও জানান, নাহিদকে আটকের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে র‌্যাব সদস্যরা। পরে তাকে সাদুল্যাপুর থানায় হস্তান্তর করে আবারও বাসায় তল্লাশি চালায় র‌্যাব সদস্যরা। তবে তল্লাশি করেও তার বাড়ি থেকে আর কিছু উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। এ নিয়ে র‌্যাবের পক্ষে নাহিদের বিরুদ্ধে সাদুল্যাপুর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

নাহিদ কিভাবে কার মাধ্যমে ইয়াবা এনে ব্যবসা করতো তা তদন্ত করা হচ্ছে। এছাড়া নাহিদের কাছে কারা ইয়াবা ক্রয় করতো এবং তার সাথে আরও কেউ জড়িত আছে কিনা তাও সনাক্ত করতে তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে জড়িতদের বিরুদ্ধেও আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান ওসি।

এরআগেও তার বাড়িতে অভিযান চালায় র‌্যাব।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply