জনগণের স্বার্থকে প্রাধান্য দিতে হবে: ঢাবি সমাবর্তনে রাষ্ট্রপতি

|

বর্ণাঢ্য আয়োজনে প্রাচ্যের অক্সফোর্ডখ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫১তম সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এ বছর মোট ২১ হাজার ১১১ জন শিক্ষার্থী রাষ্ট্রপতির উপস্থিতিতে সনদ গ্রহণের মাধ্যমে শিক্ষাজীবন শেষ করছেন।

বেলা ১২টায় বর্ণিল আয়োজনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য্য রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সভাপতিত্বে শুরু হয় সমাবর্তনের মূল আনুষ্ঠানিকতা। সমাবর্তন র‌্যালি শেষে বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে গ্রাজুয়েটদের মাঝে সনদ বিতরণ করা হয়।

সমাবর্তন বক্তা ও জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান সদ্য গ্রাজুয়েটদের অভিনন্দন জানান। পেশা জীবনে শিক্ষার্থীদের সাফল্য কামনা করেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য্য রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে স্বাধীনতা যুদ্ধ সবসময়ই এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন।

দেশের উন্নয়নে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আরও বেশী ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান রাষ্ট্রপতি। তিনি বলেন, জনগণের অর্থেই পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত হয়, তাই তাদের স্বার্থকে প্রাধান্য দিতে হবে৷ ডিপ্লোমা ও সান্ধ্যকোর্সের নামে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অপরিকল্পিত ডিগ্রী প্রদান করা হচ্ছে৷ এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্য ও লেখাপড়ার মান ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে কিনা তা সতর্কভাবে দেখতে হবে শিক্ষকদের।

এবছর বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়মিত শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি ঢাকা বিশবিদ্যালয়ের অধিভুক্ত ৭টি কলেজের শিক্ষার্থীরাও সমাবর্তনে অংশ নিয়েছেন। ৫১তম সমাবর্তনে ৯৬ জনকে স্বর্ণপদক, ও ৮৭ জন শিক্ষার্থীকে পিএইচডি ডিগ্রী দেয়া হলো।

তিনি দেশের উন্নয়নে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আরও বেশী ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply