গোপালগঞ্জে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩

|

স্টাফ রিপোর্টার,গোপালগঞ্জ

গোপালগঞ্জে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় এক গৃহবধূসহ ৩ জন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরো ৫৮ জন।
আজ বৃহস্পতিবার সকালে গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার বাটিকামারী ও সদর উপজেলার ভোজেরগাতিতে এসব দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন-গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার দিগনগর ইউনিয়নের বিশ্বম্ভরদী গ্রামের কুদ্দুস মিয়ার স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৫০), বাগেরহাটের হাসেম আলীর ছেলে বাসের হেলপার সাইফুল ইসলাম(১৮) ও গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার মোকসেদ আলীর ছেলে সবেদ আলী (৫৫)।

মুকসুদপুর থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) মোস্তফা কামাল পাশা জানান, সকালে মুকসুদপুরের বরইতলা থেকে কাশিয়ানীর ভাটিয়াপাড়াগামী মা-বাবার দোয়া নামের (ঢাকা মেট্রো চ-৮২২৬) যাত্রীবাহী একটি লোকাল বাস মুকসুদপুর উপজেলা চাওচা এলাকার শিশুতলা মোড়ে পৌঁছলে একটি অটোভ্যানকে সাইড দিতে গিয়ে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে একটি গাছের সাথে সাজোরে ধাক্কা মারে। এতে বাসটি দুমড়ে মুচড়ে গিয়ে সড়কের খাদে পড়ে যায়।

এতে মনোয়ারা বেগমসহ ৩১ জন আহত হন। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহায়তা মুকসুদপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আহতদের উদ্ধার করে মুকসুদপুর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরতঃ চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মারাত্মক আহত শাহিনা বেগম (৪৫), শেফালী বেগম (৫০), আকমাল শেখ (৬৫), রফিক (৩০), আরিফ (৩৫), আলিম মাতুব্বর (৪০) কে মুকসুদপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

অন্যদিকে, গোপালগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম জানান, গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার গোপালগঞ্জ-কোটালীপাড়া সড়কের ভোজেরগাতি নামক স্থানে কোটালীপাড়া থেকে গোপালগঞ্জ আসার পথে একটি যাত্রীবাহী লোকাল বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার খাদে পড়ে যায়।

এতে ওই বাসের অন্ততঃ ৩০ যাত্রী আহত হন।পরে খবর পেয়ে গোপালগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আহতদের উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে।

এরমধ্যে মারাত্মক আহত ২৫ জনকে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরে মারাত্মক আহত বাসের হেলপার সাইফুলসহ দুই জনকে খুলনা নেওয়ার পথে সাইফুল ও গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সবেদ আলী মারা যান।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply