‘এত হিন্দু থাকতে মুসলমানের সঙ্গে প্রেম কেন?’ বলে মারল পুলিশ

|

ধর্ম নিয়ে ভারতে হিংসার এই যুগে ফের আরেকটি চাঞ্চল্যকর ভিডিও প্রকাশিত হল। মুসলমান ছেলের সঙ্গে প্রেম করার কারণে পুলিশই মারল উত্তরপ্রদেশের মীরাটের এক তরুণীকে। অবশ্য একটু আগে ওই পুলিশ সদস্যরাই ওই তরুণীকে উগ্রপন্থী হিন্দুত্ববাদী একদল লোকের হাত থেকে বাঁচিয়ে নিজেদের জিম্মায় নিয়েছিল।

সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, পুলিশ ভ্যানে বসে থাকা চারজন পুলিশ সদস্য অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করতে করতে চড়-থাপ্পড় মেরেই চলেছে ওই তরুণীকে। সেই ঘটনার ভিডিওটি করেছেন চারজন পুলিশেরই একজন।

কর্তৃপক্ষ বলছে, অভিযুক্ত পুলিশদের সাসপেন্ড করে দেয়া হয়েছে তড়িঘড়ি। এখন তদন্ত চলছে।

পুলিশ ভ্যানের চালকের আসনে বসে থাকা এক পুলিশের মোবাইলে তোলা উনত্রিশ সেকেন্ডের ওই ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, তরুণীটি এক মহিলা পুলিশকর্মী ও এক পুরুষ পুলিশকর্মীর মাঝখানে বসে আছে। গাড়ির সামনে বসে আছে দুজন পুলিশ সদস্য।

একজন পুলিশের কণ্ঠ শোনা যায়- “চারপাশে এত হিন্দু থাকতেও তুই মুসলমানকে পছন্দ করলি কেন?” ঠিক তারপরেই মহিলা পুলিশ সদস্যটি ওই তরুণীকে মারতে থাকেন। যে স্কার্ফ দিয়ে তার মুখ ঢাকা ছিল, খুলে ফেলা হয় সেটিও। তারপর মারধর চলতেই থাকে।

সংশ্লিষ্ট পুলিশ সদস্য ওই ভিডিও তার সহকর্মীদের সঙ্গে শেয়ার করার খানিকক্ষণের মধ্যেই সেটি পৌঁছে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়।

ঘটনাটি গত রবিবারের। মধ্য কুড়ির ওই তরুণী ও তার মুসলমান প্রেমিক দুজনেই মেডিকেল পড়ুয়া। অভিযোগ, তাদের দুজনকে আক্রমণ করে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সমর্থকরা। তাদের দুজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে ‘লাভ জিহাদ’ এর। তাদের কাছ থেকে ওই দুজনকে উদ্ধার করে দুটি আলাদা গাড়িতে থানায় নিয়ে যাওয়ার সময়ই ওই ঘটনা ঘটে।

সূত্র: এনডিটিভি


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply