ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলার লুকা মড্রিচ

|

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো আর মোহামেদ সালাহকে পেছনে ফেলে ‘দ্যা বেস্ট ফিফা মেনস প্লেয়ার’ অ্যাওয়ার্ড জিতেছেন লুকা মড্রিচ। ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো বর্ষসেরা এই পুরস্কার জিতলেন ক্রোয়েশিয়া আর রিয়াল মাদ্রিদের এই ফুটবলার। সেরা কোচ দিদিয়ের দেশম আর সেরা গোলক্ষক হয়েছেন থিবো কোর্তোয়া। এদিকে, বর্ষসেরা একাদশে টানা দ্বাদশবারের মতো মেসি-রোনালদো থাকলেও স্থান হয়নি নেইমার আর মোহামেদ সালাহর।

লুকা মড্রিচের এই পুরস্কার জেতার মধ্য দিয়ে শেষ হলো লিওনেল মেসি আর ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর ১১ বছরের রাজত্বের। উদ্বাস্তু শিবির থেকে উঠে এসে বিশ্ব ফুটবলের রাজা এখন লুকা মড্রিচ। ২০০৭ এর পর এই প্রথম মেসি-রোনালদোর বাইরে কেউ জিতলো ফিফা বর্ষসেরার পুরস্কার।

রাশিয়া বিশ্বকাপে ক্রোয়েশিয়াকে ফাইনালে নিয়ে যাওয়া আর ক্লাব ফুটবলে রিয়াল মাদ্রিদকে চ্যাম্পিয়নস লিগসহ আরও ৩টি শিরোপা জেতানোর কাণ্ডারি ছিলেন এই মিডফিল্ডার। বিশ্বকাপে গোল্ডেন বল আর উয়েফা বর্ষসেরার পুরস্কার জিতে আগেই আভাস দিয়ে রেখেছিলেন ঘরে তুলতে যাচ্ছেন ‘দ্যা বেস্ট ফিফা মেনস প্লেয়ার অ্যাওয়ার্ড’।

জাতীয় দলের কোচ, অধিনায়ক, ফিফা নির্বাচিত সাংবাদিক ও নিবন্ধিত ফুটবলপ্রেমীদের ২৯.০৫ শতাংশ ভোট পেয়েছেন এই ক্রোয়াট। পেছনে ফেলেছেন ১৯,০৮ শতাংশ ভোট পাওয়া ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো আর ১১.২৩ শতাংশ ভোট পাওয়া মোহামেদ সালাহকে।

পুরস্কার পাওয়ার পর লুকা মড্রিচ বলে, এই ট্রফি আমার একার নয়, ক্রোয়েশিয়া আর রিয়াল মাদ্রিদের সতীর্থদের ধন্যবাদ। ভক্তদের প্রতিও কৃতজ্ঞ আমি। এটা আমার জীবনে বড় এক পাওয়া।

বর্ষসেরার পুরস্কার না জিতলেও সেরা গোলের জন্য পুসকাস অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন মোহামেদ সালাহ। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে এভারটনের বিপক্ষে লিভারপুলের হয়ে দৃষ্টিনন্দন এই গোলের জন্যই প্রথমবারের মতো এই পুরস্কার পান মিশরের এই ফুটবলার।

ফ্রান্সকে বিশ্বকাপ জেতানোর পুরস্কার স্বরুপ ফিফা বর্ষসেরা কোচের পুরস্কার জিতে নিয়েছেন দিদিয়ের দেশাম। প্রায় ৩১ শতাংশ ভোট পেয়ে পেছনে ফেলেছেন গেলবারের জয়ী জিনেদিন জিদান আর বিশ্বকাপে ক্রোয়েশিয়ার রানার্সআপের কারিগর জ্লাতকো দালিচকে।

ফিফা বর্ষসেরা একাদশে একচেটিয়া আধিপত্য রিয়াল মাদ্রিদের। সর্বোচ্চ ৫ ফুটবলারই স্প্যানিশ ক্লাবটির। গোলরক্ষক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন ডেভিড ডি-গিয়া। রক্ষণের দায়িত্বে ডানি আলভেজ, রাফায়েল ভারানে, সার্জিও রামোস আর মার্সেলো। মাঝমাঠের কাণ্ডারি হিসেবে আছেন লুকা মড্রিচ, এনগলো কন্তে আর এডেন হ্যাজার্ড। আর আক্রমণভাগে আছেন কিলিয়ান এমবাপ্পে, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো আর লিওনেল মেসি।

তবে, এই একাদশে জায়গা না হলেও ঠিকই বর্ষসেরা গোলরক্ষকের পুরস্কার উঠেছে থিবো কোর্তোয়ার হাতেই। রাশিয়া বিশ্বকাপেও গোল্ডেন গ্লাভস জিতেছিলেন বেলজিয়ামের এই গোলরক্ষক।

এদিকে ষষ্ঠবারের মতো ফিফা বর্ষসেরা নারী ফুটবলার হয়েছেন ব্রাজিলের মাত্রা। এছাড়াও বর্ষসেরা নারী কোচের খেতার জিতেছেন লিঁওকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতানো রেইনাল পেড্রোস।

যমুনা অনলাইন: এফএম





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply