মোস্তাফিজের জাদুকরি এক ওভার!

|

শেষ ওভারে জয়ের জন্য ৮ রান দরকার আফগানদের। স্নায়ুর চরম পরীক্ষা। এমন পরীক্ষায় বহুবার ফেল করেছে বাংলাদেশ। তবে, এবার যেন ঘুরে দাঁড়ানোর পালা। চাপকে জয় করেই আবুধাবিতে শ্বাসরুদ্ধকর এক জয় তুলে নিলো বাংলাদেশ। এক কথায় জয়ের নায়ক মোস্তাফিজ।

প্রথম বলেই দুই রান দিলেন ফিজ। ৫ বলে ৬ রান দরকার। হাতে ৪ উইকেট। সমীকরণটা তখন আফগানদের দিকে হেলে পড়েছে। পরের বলটা শর্ট লেংথে ফেললেন মোস্তাফিজ। পুল করতে গিয়ে মোস্তাফিজের হাতেই ক্যাচ দিয়ে ফিরলেন রশিদ খান। ৪ বলে দরকার ৬ রান।

পরের বলটাই চলে গেল শর্ট লেগে থাকা মাশরাফীর কাছে। ক্যাচের আবেদনে ফেটে পড়ল বাংলাদেশ। কিন্তু লেগ বাইয়ের সিদ্ধান্ত দিলেন আম্পায়ার।

৩ বলে ৫ রান। এতটি ছক্কায় মিটে যেতে পারে সব হিসেব নিকেশ। চতুর্থ বলে মোস্তাফিজের অফ কাটার। বুঝতেই পারলেন না নতুন ব্যাটসম্যান গুলবাদিন নাইব।

২ বলে দরকার ৫ রান। এবার পরাস্ত হলেও দৌড়ে স্ট্রাইক পাল্টালেন আফগান ব্যাটসম্যানরা। ১ বলে ৪ রান দরকার আফগানিস্তানের। ক্রিজে সেট ব্যাটসম্যান সামিউল্লাহ শেনওয়ারি। যাকে আম্পায়ার একবার আউট দেয়ার পর রিভিউ নিয়ে বেঁচে গেছেন। আরেকবার বাংলাদেশ রিভিউ নিয়েও সাজঘরে ফেরাতে পারেনি। তখন পর্যন্ত ১৮ বলে ২৩ রান করেছেন।

মোস্তাফিজের লাফিয়ে ওঠা বল সরে এসে মারতে গিয়ে নিজের ব্যাটই উড়িয়ে ফেললেন সামিউল্লাহ শেনওয়ারি। বল সোজা মুশফিকের হাতে। শ্বাসরুদ্ধকরা এক জয়!

ম্যাচ শেষে অধিনায়ক মাশরাফী বলেন, জাদুকরের মতো বল করেছে মোস্তাফিজ। শেষ ওভারে তার জাদুকরি বোলিংয়েই জয় এসেছে। এরকম রোমাঞ্চকর জয় উপহার দেয়ার জন্য তাকে ধন্যবাদ। আশা করি, বোলিংয়ে এমন জাদুর প্রদর্শনী সামনে আরো দেখাবে ও। সেটা অব্যাহত থাকলে দলের জন্যই মঙ্গল।

এ জয়ে এশিয়া কাপের ফাইনালে খেলার আশা বাঁচিয়ে রাখল বাংলাদেশ। আসছে মঙ্গলবার পাকিস্তানকে হারাতে পারলে কোনো সমীকরণ ছাড়াই ভারতের বিপক্ষে ফাইনাল খেলবে মাশরাফী বাহিনী।

যমুনা অনলাইন: টিএফ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply