ডাকাতির অপবাদে যুবককে গাছে বেঁধে নির্যাতন

|

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি:

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে ডাকাতির মিথ্যা অপবাদে মো. রিপন হোসেন (৩৫) নামে এক যুবককে সুপারি গাছে বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে এ ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে এলাকা জুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

উপজেলার চন্ডিপুর ইউনিয়নের ফতেপুর গ্রামে চেয়ারম্যান কামাল হোসেন ভূঁইয়ার নেতৃত্বে তার ভাই মামুন এ নির্যাতন চালায় বলে রিপনের পরিবার অভিযোগ করে। নির্যাতনের শিকার রিপন উপজেলার করপাড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ বদরপুর গ্রামের মৃত রুহুল আমিনের ছেলে।

রিপনের পরিবার ও ভিডিও সূত্রে জানা গেছে, কয়েক মাসপূর্বে চন্ডিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের লোকজন বিনা কারণে রিপনকে ধরে নিয়ে মারধর করে তার জাতীয় পরিচয়পত্র রেখে দেয় এবং মামলা দিয়ে জেলে পাঠায়।

সম্প্রতি জামিনে এসে রিপন পরিচয়পত্র আনতে ওই চেয়ারম্যানের বাড়িতে যায়। এসময় চেয়ারম্যান, তার ভাই মামুন ও ইউপি সদস্য ফারুক তাকে ডাকাতির অপবাদ দিয়ে সুপারি গাছের সাথে বেঁধে বেধম মারধর করে।

এক পর্যায়ে তার শরীরে পেরেক ও পিন দিয়ে আঘাত করে তারা। এসময় স্থানীয় এক প্রত্যক্ষদর্শী নির্যাতনের ঘটনা মোবাইলে ভিডিও ধারণ করে। ভিডিওটি আজ (শুক্রবার) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

রিপনের স্ত্রী আরজু বেগম ও বোন সাথী অভিযোগ করে বলেন, ডাকাতির মিথ্যা অপবাদ দিয়ে চেয়ারম্যান লোকজন দিয়ে রিপনকে গাছে বেঁধে নির্যাতন করেছে। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে। আমরা এ নির্যাতনের সুষ্ঠু বিচার দাবী করছি।









Leave a reply