নির্বাচনের আগে দেড় লাখ ইভিএম কেনার প্রকল্প একনেকে অনুমোদন

|

সংসদ নির্বাচনের আগে দেড় লাখ ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন- ইভিএম কিনবে সরকার। এজন্য, খরচ হবে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা। মঙ্গলবার সকালে, জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি-একনেকে এই প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়।

সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানান, প্রথম দফায় শহরাঞ্চলে ইভিএম ব্যবহারের অনুশাসন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে, এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে নির্বাচন কমিশন। একনেক সভায় জানানো হয়, বিদায়ী অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি হয়েছে রেকর্ড ৭ দশমিক ৮৬ ভাগ।

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএমে পরিচয় যাচাই হবে আঙুলের ছাপে। আলাদা ডিসপ্লেতে ভেসে উঠবে ভোটারের ছবিসহ অন্যান্য তথ্য। পোলিং এজেন্টসহ সংশ্লিষ্টরা তা যাচাইয়ের পরই ভোট দিতে পারবেন একজন নাগরিক। ফলাফল প্রিন্ট করা যাবে সাথে সাথেই। একটি মেশিন চলবে টানা ৪৮ ঘণ্টা।

আসছে নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার হবে কিনা, সে বিতর্ক বেশ কিছুদিন ধরেই চলছে। সিদ্ধান্ত এখনও চূড়ান্ত নয়। এর মাঝেই মঙ্গলবার একনেক সভায় ইভিএম কেনার প্রস্তাবে সবুজ সংকেত দিলেন প্রধানমন্ত্রী। সভায় সিদ্ধান্ত হয়, দেড় লাখ যন্ত্র কেনা হবে তিন ধাপে। প্রতিটির গড় দাম ২ লাখ টাকা। প্রকল্পের আওতায় প্রশিক্ষণ পাবে প্রায় ৩ হাজার কর্মী।

বিদায়ী অর্থবছরে রেকর্ড ৭ দশমিক ৮৬ ভাগ জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে বাংলাদেশ। সে তথ্য জানিয়ে সভার শুরুতেই প্রধানমন্ত্রীকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান পরিকল্পনামন্ত্রী। পরে জানান, প্রবৃদ্ধি অর্জনে সেবা খাতের অবদান সবচেয়ে বেশি। তবে মাথাপিছু আয় কমেছে ১ ডলার।

একনেক সভায় ১২ হাজার ৫৪৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৪টি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply