গাইবান্ধায় বাস চলাচল বন্ধ, ভোগান্তিতে যাত্রীরা

|

গাইবান্ধা প্রতিনিধি
প্রস্তাবিত সড়ক পরিবহণ আইন ২০১৮ প্রতিবাদে গাইবান্ধা জেলায় দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাসসহ (কোচ) ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন চালক-শ্রমিকরা।

রবিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) ভোর ৬টা থেকে বাস চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয় চালক-শ্রমিকরা।

এদিকে কোনো ধরনের পূর্বঘোষণা ছাড়াই হঠাৎ করে গাইবান্ধা থেকে ঢাকাগামী দূরপাল্লার বাস ও অভ্যন্তরীন রুটে সকল প্রকার বাস চলাচল বন্ধ থাকায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রী সাধারণ ও ব্যবসায়ীরা।

রবিবার দুপুরে গাইবান্ধা বাস টার্মিনালে গিয়ে দেখা যায়, কোন প্রকারর বাস চলাচল করছেনা। সকল প্রকার বাসগুলো সাড়িবদ্ধ করে রাখা হয়েছে। চালক-শ্রমিক অনেকেই অলস সময় পার করছেন।

সকাল থেকেই দুপুর পর্যন্ত কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা যাত্রীরা দীর্ঘ সময় ধরে অনিশ্চয়তার মধ্যে অপেক্ষা করছেন। অনেকে জরুরি প্রয়োজনে বেরিয়েও বিফল হয়ে বাড়ি ফিরছেন। আবার কেউ কেউ বিকল্প পথে রওনা হচ্ছেন গন্তব্যের উদ্দেশ্যে।

রৌমারী থেকে আসা আসমা বেগম বলেন, ঢাকায় যাওয়ার জন্য সকালে বাস টার্মিনালে আসেন। কিন্তু বাস চলাচল না করায় ঢাকায় যাওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এখন অন্য কোন বিকল্প পথে যাওয়া সম্ভব কিনা তাও জানেন না।

আবদুর রহিম নামে এক যাত্রী জানান, ছেলের পরীক্ষা আছে সোমবার। এজন্য ছেলেকে নিয়ে সৈয়দপুরে যাবার জন্য বাস টার্মিনালে আসেন। কিন্তু বাস চলাচল বন্ধ জেনে দুর্ভোগে পড়েন তিনি।

কাপড় ব্যবসায়ী আজগর আলী জানান, বাস চলাচল না করায় তাদের ব্যবসার ক্ষতি হচ্ছে। এখন কখন কোন সময় বাস চলাচল শুরু হবে তা অনিশ্চিত। এতে করে অনেক ব্যবসায়ী ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

চালক-শ্রমিকদের দাবি, প্রস্তাবিত আইনে জেল-জরিমানা বাতিল করাসহ সড়কে যানবাহন ও শ্রমিকদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। তাদের দাবি মেনে না নেওয়া পর্যন্ত তারা কর্ম বিরতি পালন করবেন।

এ বিষয়ে গাইবান্ধা নাগরিক পরিষদের আহ্বায়ক সিরাজুল ইসলাম বলেন, এমনিতেই বাস চলাচল না করা মানেই যাত্রী সাধারণের দুর্ভোগ। উপরন্ত হঠাৎ পরিবহন চলাচল বন্ধ করে দিয়ে জনগনের দুর্ভোগ আরও বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। পুর্ব ঘোষণা না থাকায় বাসটার্মিনালে গিয়ে মানুষ হয়রানীর শিকার হচ্ছেন।

গাইবান্ধা জেলা মোটর মালিক সমিতির সভাপতি মকবুল হোসেন মুঠোফোনে বলেন, প্রস্তাবিত সড়ক নিরাপত্তা আইনে জরিমানা ও সাজার বিধান সংশোধনের দাবিতে চালকরা বাস চলাচল বন্ধ করেছে। চালক-শ্রমিকদের নিরাপত্তায় দাবি না মানা পর্যন্ত ঢাকাসহ সকল রুটেই বাস চলাচল বন্ধ থাকবে।









Leave a reply