শিক্ষার্থীদের শাস্তি দিতে নয়, কাউন্সেলিংয়ের জন্য নেয়া হয়েছিলো: বগুড়া জেলা প্রশাসক

|

বগুড়া ব্যুরো

ক্লাশ চলার সময় বিভিন্ন রেস্টুরেন্টে আড্ডারত স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের কোনো শাস্তি দেয়ার উদ্দেশে নয়, তারা যে ভুল কাজটি করছে তা সতর্ক করতেই তাদেরকে জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে নেয়া হয়েছিলো। শনিবার বিকেলে বগুড়া সার্কিট হাউজ সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে একথা জানিয়েছেন বগুড়ার জেলা প্রশাসক নূরে আলম সিদ্দিকী।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা প্রশাসক বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই শহরের বেশ কিছু স্কুলের প্রধান শিক্ষক অভিযোগ করছিলেন, স্কুল-কলেজের আশপাশে সাম্প্রতিক সময় কিছু রেস্টুরেন্ট গড়ে উঠেছে, যেগুলোতে ক্লাশ চলার সময় স্কুল-কলেজ ফাঁকি দিয়ে শিশুরা আড্ডা দেয় বা সময় কাটায়। মূলত কাউন্সেলিংয়ের জন্য গত বৃহস্পতিবার একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে স্কুল-কলেজে ক্লাশ চলার সময় এমন কিছু রেস্টুরেন্ট থেকে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়। পরে সভাকক্ষে বসে এভাবে ক্লাশ বাদ দিয়ে সময় না কাটিয়ে পড়াশোনার প্রতি মনোযোগী হবার পরামর্শ দেয়া হয়। পরবর্তীতে তারা যেনো বিব্রতকর অবস্থায় না পরে সে জন্য বিষয়টি তাদের অভিভাবক বা শিক্ষকদের জানানো হয় নি। কিন্তু পরবর্তীতে কিছু গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম সেই শিশুদের ছবি ও সংবাদ প্রকাশ করে এই শিক্ষার্থীদেরকেই ক্ষতির মধ্যে ফেলেছে। শিশু কিংবা শিক্ষার্থীদের নিয়ে কোনো সংবাদ প্রকাশের ক্ষেত্রে গণমাধ্যমগুলোকে আরো সতর্ক হবার অনুরোধও জানান জেলা প্রশাসক।

গত বৃহস্পতিবার বগুড়ার বেশ কয়েকটি রেস্টুরেন্টে অভিযান চালিয়ে ক্লাশ চলার সময় আড্ডারত স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে নেয়া হয়। পরে কয়েকটি জাতীয় ও স্থানীয় দৈনিক এবং অনলাইন পোর্টালে ওই শিক্ষার্থীদের ছবি ও সংবাদ প্রকাশকে কেন্দ্র করে সমালোচনা শুরু হয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।









Leave a reply