কেন্দুয়ায় পুকুর থেকে স্কুলছাত্রের বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার

|

কামাল হোসাইন,নেত্রকোণা

নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলার গগডা-আটকান্দিয়া গ্রামের একটি পুকুর থেকে এক স্কুলছাত্রের বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত ওই ছাত্রের নাম জনি মিয়া (১১)। সে ওই গ্রামের সোবহান মিয়ার ছেলে এবং গগডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র।

রোববার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে কেন্দুয়া থানা পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, স্কুল ছাত্র জনি মিয়া গত শুক্রবার বিকেলে খেলার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর আর সে বাড়ি ফিরেনি। পরিবারের সদস্যরা বিভিন্ন স্থানে তাকে খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে থানায় খবর দেয়। একই সঙ্গে এলাকার বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করা হয়। কিন্তু কোথায়ও তার সন্ধান মেলেনি। রোববার দুপুরে স্থানীয় লোকজন গ্রামের পাশে একটি পুকুরে বস্তাবন্দী লাশ ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেন। পরে কেন্দুয়া থানা থেকে পুলিশ সদস্যরা এসে লাশটি উদ্ধার করেন। পরে পরিবারের সদস্যরা লাশটি জনির বলে সনাক্ত করেন। বিকেলে মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। তবে কে বা কারা এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত তার সুনির্দিষ্ট কারণ জানা যায় নি। তবে পুলিশের ধারণা পরিবারের সঙ্গে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। কিন্তু তদন্তের স্বার্থে পুলিশ তা বলছে না।

নেত্রকোণা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো. শাহজাহান মিয়া জানান, ঘটনাটির সুষ্পষ্ট কোনো চিহ্ন এখনও পাওয়া যায়নি। তবে নিহত ওই ছাত্রের পরিবারের সঙ্গে একটি পরিবারের বিরোধ রয়েছে বলে জানা গেছে। সব বিষয় মাথায় নিয়ে তদন্ত চলছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।’









Leave a reply