আস্থার প্রতিদান দিতে পারলেন না সোহেল

|

এশিয়ান গেমসে দারুণ খেলে আশার প্রদীপ জালিয়েছিল বাংলাদেশের ফুটবলাররা। পুরো টুর্নামেন্টে দারুণ সপ্রতিভ ছিলেন গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা। বিশেষ করে কাতারের বিপক্ষে স্মরণীয় জয়ে পোস্টের নিচে রানার ভূমিকা ছিল অনবদ্য। অথচ, সেই রানাকে বসিয়ে রেখে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে গোলরক্ষক শহীদুল আলম সোহেলের ওপরই ভরসা রেখেছিলেন বাংলাদেশ দলের কোচ জেমি ডে।

জেমি ডে’র পছন্দের পেছনে যুক্তি ছিল সোহেলের অভিজ্ঞতা ও উচ্চতা। সাফের মতো টুর্নামেন্টে তরুণ রানার বদলে তাই সোহেলের ওপরই ভরসা রেখেছিলেন কোচ। আর সোহেল? কোচের আস্থার প্রতিদান দিতে ব্যর্থ হলেন তিনি। এর আগে, নীলফামারির শেখ কামাল স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে পোস্টের থেকে অনেকখানি সামনে এগিয়ে এসে বলের ফ্লাইট মিস করে হাস্যকর গোল খেয়েছিলেন সোহেল। সাফে ভুটানের বিপক্ষে ম্যাচে কয়েকটি নির্বিষ আক্রমণ ঠেকিয়েছিলেন। পাকিস্তানের বিপক্ষেও বড় ধরনের পরীক্ষা দিতে হয়নি তাকে।

আজ নেপালের বিপক্ষে মহ গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচেই কিনা করে বসলেন হাস্যকর ভুল! ম্যাচের ৩২ মিনিটে ফ্রি কিক থেকে নেওয়া বিমল গাত্রি মাগারের একটি সাধারণ শট সোহেলের হাত ফসকে জালে জড়ায়। অথচ, এর আগ পর্যন্ত ভালোই খেলছিল বাংলাদেশ। ম্যাচের শেষ দিকে যে গোলটি দিলো নেপাল সেটিও নিষ্ক্রিয় দর্শকের মতো চেয়ে চেয়েই দেখলেন। সোহেলের এমন ভুলের মাশুল হিসেবে সাফের গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিলো বাংলাদেশ। ব্যক্তি সোহেলও নিশ্চয় স্বস্তিতে নেই। কোচের আস্থার প্রতিদান দিতে যে ব্যর্থ হলেন। ব্যর্থতার জ্বালায় কে না পোড়ে?

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply