ইলিশ মাছের ইলিশের জিনের ক্রমবিন্যাস উদঘাটন

|

ময়মনসিংহ ব্যুরো

ইলিশ মাছের জিনোম সিকোয়েন্সিং বা জিনের ক্রমবিন্যাস উদঘাটন করেছে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক। আজ সকালে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সমিতি মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারিজ বায়োলজি এন্ড জেনেটিক্স বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. সামছুল আলম ও তার সহযোগি গবেষকরা এই গবেষনা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে গবেষকরা জানান ইলিশের জিনোমে ৭৬ লক্ষ ৮০ হাজার নিউক্লিওটাইড রয়েছে যা মানুষের জিনোমের প্রায় এক চতুর্থাংশ। ইলিশের পূর্ণাঙ্গ জিনোম সিকোয়েন্স জানার মাধ্যমে অসংখ্য অজানা প্রশ্নের উত্তর খুব সহজেই জানা যাবে ।

গবেষকরা বলেন, ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে কাজ শুরু করেন তারা। ২০১৭ সালের ৩১ জুলাই ইলিশের পূর্ণাঙ্গ ডি-নোভো জিনোম অ্যাসেম্বলী প্রস্তুত হয়। ওই বছরের ২৫ আগষ্ট ইলিশের সম্পূর্ণ জিনোম সিকোয়েন্স আন্তর্জাতিক জিনোম ডেটাবেজ ‘ন্যাশনাল সেন্টার ফর বায়োটেকনোলজি ইনফরমেশনে’ (এনসিবিআই) জমা করা হয়। এছাড়াও ইলিশের জিনোম বিষয়ে গবেষণালব্ধ ফলাফল ২ টি আর্ন্তজাতিক কনফারেন্সেও উপস্থাপন করা হয়েছে।









Leave a reply