তুরস্কের প্রস্তাবে রাজি নয় রাশিয়া-ইরান, ইদলিবে মানবিক বিপর্যয় অবশ্যম্ভাবী

|

সিরিয়ায় বিদ্রোহীদের সর্বশেষ ঘাঁটি ইদলিবে অস্ত্রবিরতি ঘোষণায় তুরস্কের প্রস্তাবে রাজি হয়নি ইরান ও রাশিয়া। বিদ্রোহীদের হঠাতে রুশ-ইরান-বাশার অক্ষ হামলা শুরু করলে প্রদেশটিতে মানবিক বিপর্যয় ঘটতে পারে বলে ইতিমধ্যে আশঙ্কা করেছে জাতিসংঘ।

বর্তমানে সিরিয়ার যুদ্ধের তিন মূল নিয়ন্ত্রক তুরস্কের রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান, রাশিয়ার ভ্লাদিমির পুতিন ও ইরানের হাসান রুহানি শুক্রবার তেহরানে বৈঠক করেন। পরে এক বিবৃতিতে তারা বলেছেন, সামরিকভাবে এ যুদ্ধের সমাধান হবে না। রাজনৈতিক পথেই এগতে হবে।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান ইদলিবে যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানালে রাশিয়া ও ইরানের প্রেসিডেন্ট তা প্রত্যাখ্যান করেন।

এরদোগান বলেন, সেখানে ব্যাপক হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে পারে বলে তিনি শঙ্কা প্রকাশ করেছেন। তুরস্ক অতিরিক্ত শরণার্থীর ঢল সামাল দিতে পারবে না।

পুতিন বলেন, উগ্রপন্থী গোষ্ঠীগুলোকে যুক্ত না করে সেখানে অস্ত্রবিরতি ঘোষণা হবে অর্থহীন। আর রুহানি বলেন, সিরিয়াকে অবশ্যই তার ভূখণ্ডের ওপর পূর্ণ কর্তৃত্ব নিতে হবে।

সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশটিই এখন বিদ্রোহী এবং জিহাদি গোষ্ঠীগুলোর শেষ ঘাঁটি হওয়ার কারণে অনেক ঝুঁকি নিয়েও সেখানে যুদ্ধ থেকে পিছু হটতে রাজি নয় সিরিয়া এবং রাশিয়া।

কিন্তু জাতিসংঘের হিসাবমতে, ইদলিবের জনসংখ্যা ২৯ লাখ। এর মধ্যে ১০ লাখই শিশু। তাই সেখানে বেপরোয়া হামলায় প্রাণহানি নিয়ে উদ্বেগ আছে।









Leave a reply