মেসিকে ‘হুমকি’: ফিলিস্তিনি ফুটবল প্রধানকে নিষিদ্ধ করলো ফিফা

|

রাশিয়া বিশ্বকাপকে সামনে রেখে গত জুনে জেরুজালেমের টেডি স্টেডিয়ামে ইসরায়েলের সঙ্গে প্রীতি ম্যাচ খেলার কথা ছিল আর্জেন্টিনার। রাশিয়া বিশ্বকাপে অংশ নেওয়ার আগে ওটাই ছিল লিওনেল মেসিদের শেষ প্রস্তুতি ম্যাচ। কিন্তু প্রস্তুতি ম্যাচের সামনে বাধা হয়ে দাঁড়ায় ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনির মধ্যকার রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব।

ইসরায়েল-আর্জেন্টিনার ওই ম্যাচটি না হওয়ার জন্য চেষ্টা করে ফিলিস্তিনি ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। প্রথমে একটি চিঠিতে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনকে (এএফএ) জেরুজালেমের ম্যাচটি বাতিলেরও আহ্বান জানান ফিলিস্তিন ফুটবল প্রধান জিবরিল রাজৌব।

তার মতে, এটিকে রাজনৈতি অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে ইসরায়েল।

রাজৌবের আহ্বানে সাড়া না দেয়ায় ফিলিস্তিনি ফুটবল এসোসিয়েশন প্রধান ঘোষণা দেন ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হলে মেসির জার্সি ও ছবি পুড়িয়ে ফেলে প্রতিবাদ জানানো হবে।

তিনি বলেছিলেন, ‘মেসি একজন বড় প্রতীক। ফিলিস্তিনিদের অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে ইসরায়েলের সাথে খেললে আমরা তাকে ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করব। আমরা তার জার্সি ও ছবি পোড়ানো এবং তাকে পরিত্যাগ করার আহ্বান জানাচ্ছি।’

পরে অবশ্য নিরাপত্তার অজুহাতে ম্যাচটি খেলা হয়নি মেসিদের। কিন্তু রাজৌবের ওই বক্তব্যকে ‘হুমকি’ হিসেবে নিয়েছে ফুটবলের বিশ্ব নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা। শাস্তি হিসেবে তাকে এক বছরের জন্য সব ধরনের ফুটবল সংক্রান্ত কর্মকাণ্ড থেকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

এক বিবৃতিতে সংস্থাটি জানায়, জিবরিল রাজৌবের বক্তব্য মানুষকে ‘ঘৃণা ও সহিংসতার’ দিকে উসকে দিয়েছে। এমন কাণ্ডে তাকে শাস্তি হিসেবে ১২ মাসের নিষেধাজ্ঞাসহ ২০ হাজার ডলার জরিমানাও করা হয়েছে।









Leave a reply