ফিরে যাওয়া রোহিঙ্গাদের ওপর অত্যাচার চালাচ্ছে মিয়ানমার: এইচআরডব্লিউ

|

বাংলাদেশ থেকে রাখাইনে ফেরত যাওয়া রোহিঙ্গাদের ওপর নতুন করে অত্যাচার চালাচ্ছে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী এমনটি জানিয়েছে মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইআরডব্লিউ)।

এতে রোহিঙ্গাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসনে দেয়া মিয়ানমার সরকারের প্রতিশ্রুতির সত্যতা প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে বলে মনে করছে ওই সংস্থা। আজ মঙ্গলবার নিজেদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এইচআরডব্লিউ বলছে, নির্যাতনের এমন আলামত প্রত্যাবাসন ইস্যুতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের অন্তর্ভূক্তি ও জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানের প্রয়োজনীয়তাকে সামনে এনেছে।

সংস্থাটির এশিয়া অঞ্চলে ডেপুটি ডিরেক্টর ফিল রবার্টসন বলেছেন, ফিরে যাওয়ার পর নিরাপত্তা ও মর্যাদা নিশ্চিত করতে মিয়ানমারের দেয়া বড় বড় বুলি সত্ত্বেও দেখা যাচ্ছে রোহিঙ্গারা নতুন করে আত্যাচারের শিকার হচ্ছেন।

গত বছর রাখাইনে ফেরত যাওয়া ৬ জন রোহিঙ্গা এইচআরডব্লিউ’কে জানিয়েছেন, মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষীরা তাদেরকে ‘অবৈধভাবে সীমান্ত পার হওয়ার কারণে’ বন্দী করে নির্যাতন চালিয়েছে।

গত বছরের ২৫ আগস্ট নিরাপত্তা চৌকিতে আরসার হামলাকে মিয়ানমারের পক্ষ থেকে রোহিঙ্গাবিরোধী অভিযানের কারণ বলা হলেও বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন ও সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, রাখাইন থেকে রোহিঙ্গাদের তাড়িয়ে দিতে এবং তাদের ফেরার সমস্ত পথ বন্ধ করতে আগে থেকেই পরিকল্পিত সেনা-অভিযান শুরু হয়েছিল।

চলমান জাতিগত নিধনে হত্যা-ধর্ষণসহ বিভিন্ন ধারার সহিংসতা ও নিপীড়ন থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর প্রায় ৭ লাখ মানুষ। আন্তর্জাতিক চাপের মুখে বিপুল পরিমাণ শরণার্থীকে ফিরিয়ে নিতে পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশ ও জাতিসংঘের সঙ্গে প্রত্যাবাসন চুক্তি করতে বাধ্য হয় মিয়ানমার। তবে এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে সেই প্রত্যাবাসন শুরু হয়নি।









Leave a reply