জেলায় জেলায় শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ, সড়ক অবরোধ

|

দুই শিক্ষার্থী নিহত এবং সড়কে নৈরাজ্যের প্রতিবাদে আজও কয়েকটি জেলায় বিক্ষোভ করেছে শিক্ষার্থীরা।

চাঁদপুরে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে আসলে পুলিশ তাতে বাধা দেয়। এসময় শহরের কালীবাড়ি এলাকার রাস্তায় বসে পড়ে ছাত্ররা। পুলিশ তাদের সরাতে গেলে অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এসয় ছাত্রদের ধাওয়া দেয় আইন শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যরা। পুলিশ লাঠিচার্জ করলে আহত হয় ১০ ছাত্র। প্রতিবাদে দুটি গাড়ি ভাঙচুর করে ছাত্র-ছাত্রীরা। পরে পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

নিরাপদ সড়কসহ ৯দফা দাবিতে টাঙ্গাইলেও বিক্ষোভ মিছিল ও ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক অবরোধ করে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। দুপুরে টাঙ্গাইল শহরের শহীদ মিনার থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আশিকপুর বাইপাস গিয়ে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক অবরোধ করে। পরে সেখানেই অবস্থান নেয় শিক্ষার্থীরা।

সকাল ১০ টা থেকে সিরাজগঞ্জ শহরের বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীরা ইলিয়ট ব্রীজের উপর সমাবেত হয়। শত শত শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়ে শহরের চৌরাস্তা মোড়ে সড়ক অবরোধ করে নিরাপদ সড়কের বিক্ষোভ মিছিল করে। প্রায় ১ ঘন্টা সেখানে অবস্থান কর্মসূচি পালনের পর তারা বিক্ষোভ মিছিল করতে করতে শহরের বাজার স্টেশন চত্বরে যায় এবং সেখানে তারা অবস্থান করে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে নাটোর প্রেসক্লাবের সামনে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা সমবেত হয়। সেখান থেকে তারা এক বিক্ষোভ মিছিল বের করে। বিক্ষোভ মিছিলটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় নাটোর প্রেসক্লাবের সামনে ফিরে আসে। পরে সেখানে তারা মানববন্ধন করে।

সারা দেশে নিরাপদ সড়কের দাবিতে চুয়াডাঙ্গায় সড়কে অবস্থান ও বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। সকালে শহরের শহীদ হাসান চত্বর ও সরকারী কলেজের সামনে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

এছাড়া বিক্ষোভ হয়েছে গাজীপুর, রাজশাহী, সিলেট, নারায়ণগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, দিনাজপুর, বান্দরবানসহ আরও কয়েকটি জেলায়। স্কুল বন্ধ থাকলেও সকালে এসব জেলা শহরের ছাত্র-ছাত্রীরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে। তারা নৌমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবি জানায়। এছাড়া পরিবহন খাতে চলা নৈরাজ্য অবসানে আইনের কঠোর প্রয়োগ চায় তারা।









Leave a reply