বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ৮ জনের মৃত্যু: অব্যবস্থাপনাকেই দায়ী করছেন স্থানীয়রা

|

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার কাদাই গ্রামে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে একসঙ্গে ৮ জনের মৃত্যুর ঘটনায় বিদ্যুৎ বিভাগের অনিয়ম, দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনাকেই দায়ী করেছেন এলাকাবাসী। তাদের মতে বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তারা প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী যথাসময়ে বৈদ্যুতিক খুঁটি সরবরাহ না করায় এ ঘটনা ঘটেছে।

এদিকে বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থা নেসকোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাকিরুল ইসলামের নেতৃত্বে নেসকোর প্রধান প্রকৌশলী রেজাউল করিমসহ উর্ধতন কর্মকর্তরা গতকাল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনার জন্য নেসকোর অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনাকে দায়ী করেছেন। তারা নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে নগদ এক লাখ টাকা করে অনুদান দিয়েছেন।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, ৫ থেকে ৬ বছর আগে কাদাই গ্রামের ২০টি বাড়িতে তৎকালীন পিডিবি সংস্থা বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার মৌখিক চুক্তিতে ঘোষি পটল গ্রামের জনৈক আবদুল মালেকের মাধ্যমে তারা প্রায় আড়াই লাখ টাকা প্রদান করেন। মিটার ও তার ক্রয় এবং বৈদ্যুতিক খুঁটি বরাদ্দের কথা বলে এই টাকা প্রদান করেন তারা।

তারা বলেন, সিরাজগঞ্জ বিদ্যুৎ বিভাগের কতিপয় কর্মকর্তা সংযোগ প্রদানের সময় বলেছিলেন আপাতত গাছে, বাঁশের খুঁটিতে তার ঝুলিয়ে সংযোগ প্রদান করা হচ্ছে। পরবর্তীতে বিদ্যুতের খুঁটি লাগানোর ব্যবস্থা করা হবে। কিন্তু দীর্ঘ ৫-৬ বছরেও বিদ্যুৎ বিভাগ সেই খুঁটি বরাদ্দ দেয়নি।

গ্রাম্য প্রধান আব্দুল বারী অভিযোগ করে বলেন, একদিকে খুঁটি দেওয়া হয়নি অপরদিকে বিদ্যুতের তারও ছিল নিম্নমানের। যে কারণে বাঁশে ঝুলানো তারের নীচ দিয়ে দোকানঘর নেওয়ার সময় চালের সঙ্গে ওই তারের ছোয়া লাগে এবং তারের রাবারের কভার ছিড়ে যায়। এতে বিদ্যুৎ স্পর্শ হয়ে অকালে মারা যান ৮ ব্যক্তি। একই অভিযোগ করেন আরও অনেকে। তবে এ বিষয়ে মালেকের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

জানা গেছে, গতকালের ঘটনায় নিহত ৮ জনের মধ্যে তিনজনই একই পরিবারের। এরা হলো- মেঘা সেখ এর ছেলে আব্দুস সাত্তার, তার ভাতিজা আব্দুল্লাহ ও মনোয়ার।

জাকিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, বিদ্যুৎ বিতরণ লাইনে অব্যাবস্থাপনা দেখা গেছে। একই স্থানে পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি ও নেসকোর লাইন রয়েছে। বিষয়গুলো ভাল করে পর্যালোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে জেলা প্রশাসন গঠিত তদন্ত কমিটির আহবায়ক অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. মনিরুজ্জামান বলেছেন, তদন্ত প্রতিবেদন জেলা প্রশাসকের কাছে জমা দেওয়া হয়েছে। এই প্রতিবেদনেও ঘটনার জন্য বিদ্যুৎ বিভাগের লাইনের অব্যবস্থাপনার কথাও উল্লেখ করা হয়েছে। নেসকো ৫ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। আগামী ৩ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেবে বলে জানা গেছে।

যমুনা অনলাইন: কেআর









Leave a reply