দু’জন রোনালদো খুঁজে পেয়েছে পর্তুগাল!

|

ফিলিপে এবং ত্রিনকাও, পর্তুগালের দুই নতুন রোনালদো ডাকা হচ্ছে তাদের।

কথায় বলে, যায় দিন ভালো, আসে দিন খারাপ। কিন্তু, পর্তুগালের আসছে দিন আরও ভালো হতে যাচ্ছে। তাদের বয়সভিত্তিক ফুটবল দল অন্তত সে আভাস দিচ্ছে। ২০১৬ সালের অনূর্ধ্ব-১৭ ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ জয় করা দলটি এবার জিতে নিয়েছে ২০১৮ সালের অনূর্ধ্ব-১৯ ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপেরও শিরোপা। তাও আবার পুরো টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত খেলে। চ্যাম্পিয়ন দলটিতে অন্তত দু’জনকে নতুন রোনালদো বলে ডাকা হচ্ছে।

নতুন দুই রোনালদো খ্যাত এই দুই তরুণ হলেন জোয়াও ফিলিপে আর ফান্সিসকো ত্রিনকাও। দু’জনই ৫টি করে গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন। দু’জনের খেলাতেই রোনালদোর ছাপ। দু’জনই রোনালদোর মতো লেফট উইংয়ে খেলতে পছন্দ করেন। আবার দলের প্রয়োজনে মাঠের ডান প্রান্তেও খেলতে পারেন, তরুণ বয়সে রোনালদো যেমনটি করতেন। বিশেষ করে জোয়াও ফিলিপে যেমন খেলছেন তাতে রোনালদোর সাথে তার তুলনা মোটেই বাড়াবাড়ি বলে মনে করছে না ফুটবল বিষয়ক সাইট গোল ডট কম। অন্যদিকে, ত্রিনকাওকে ডাকছে জুভেন্টাস এই মৌসুমে যেখানে দেখা যাবে স্বয়ং সিআর সেভেনকে!

ফিলিপে এবং ত্রিনকাও, পর্তুগালের দুই নতুন রোনালদো ডাকা হচ্ছে তাদের।

এই দুই রোনালদো ছাড়াও আরও এক ঝাঁক প্রতিভাবান তরুণ আছে পর্তুগালের অনূর্ধ্ব-১৯ ইউরো জয়ী দলে। এই দলটিকে বলা হচ্ছে দেশটির সোনালি প্রজন্ম। টুর্নামেন্টজুড়ে দারুণ খেলা দলটি ফাইনালে তুলে নিয়েছে রোমাঞ্চকর এক জয়। ৪-৩ গোলে হারিয়েছেন ইতালিকে। প্রথমার্ধে ২-০ গোলে এগিয়ে ছিল পর্তুগাল। নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই খেলায় ফিরে এসে ২-২ করে ফেলে ইতালি। অতিরিক্ত সময়ের প্রথমার্ধে পর্তুগাল আবার ৩-২ ব্যবধানে এগিয়ে। সেটা দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ৩-৩! টাইব্রেকার যখন অনিবার্য মনে হচ্ছিল, তখনই দারুণ গোলে ৪-৩ করে ফেললো পর্তুগাল।

টুর্নামেন্টে ৫ ম্যাচে ১৭ গোল করেছে পর্তুগাল! দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোল করা ইতালির ৭ গোল বেশি। প্রশংসিত হচ্ছে দলটির মানসিক দৃঢ়তাও। এর আগে, ২০১৭ সালে অনূর্ধ্ব-১৯ ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপেরও ফাইনালে গিয়েছিল পর্তুগাল। সেবার ইংল্যান্ডের কাছে ২-১ হেরে রানার্সআপ হতে হয় তাদের। না হলে তিনটি ট্রফিই থাকত পর্তুগালের এই্ দলটির! এরা যেমন খেলছে তার ধারাবাহিকতা ধরে রাখলে ২০২২ বিশ্বকাপের নতুন কিছুর স্বপ্ন দেখতেই পারে পর্তুগাল।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply