মুজিব থেকে সজীব আমলে উঠেছি: প্রধানমন্ত্রী

|

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের গ্রাউন্ড স্টেশন ‘সজীব ওয়াজেদ ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র’ গাজীপুর ও বেতবুনিয়া কেন্দ্র উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার দুপুরে ভিডিও কনফারেন্সে উদ্বোধন শেষে তিনি বলেন, মুজিব আমল থেকে সজীব আমলে উঠেছি আমরা।

পরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র এক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। সেখান থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দুটি ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্রের বিজ্ঞানীদের সঙ্গে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

এরপর শেখ হাসিনা বলেন, “বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বেতবুনিয়াতে প্রথম ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র স্থাপন করে গিয়েছিলেন। যাতে বিশ্বের সঙ্গে বাংলাদেশের সরাসরি যোগাযোগ স্থাপিত হয়। তাঁর পদাঙ্ক অনুসরণ করে গত ১২ মে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ মহাকাশে উৎক্ষেপন করা হয়েছে। আজ কিছুক্ষণ আগে আমি বেতবুনিয়াতে ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র উদ্বোধন করি। এর মাধ্যমে আমাদের যারা গ্রহীতা তাদের কাছে স্যাটেলাইটের সেবা পৌঁছে যাবে। দেশের উন্নয়নে এই স্যাটেলাইট বিশেষ অবদান রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

শেখ হাসিনা বলেন, “আমার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়ের কাছ থেকে কম্পিউটার চালানো শিখেছি। আর বাংলা টাইপ করা মোস্তফা জব্বারের কাছে শিখেছিলাম। এখন ব্যস্ততার কারণে টাইপ করা হয়না। যার কারণে টাইপিংয়ে স্পিড কমে গেছে। তবে এ শিক্ষাটা আমাদের দেশের জন্য যথেষ্ট কার্যকর।”

এর আগে, প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট- উৎক্ষেপণের মধ্য দিয়ে দেশবাসীকে সারা বিশ্বকে জানার সুযোগ করে দেয়া হয়েছে। এতে গ্রাম ও শহরের মাঝে দূর হয়েছে প্রযুক্তি বৈষম্য।

জয় বলেন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট প্রজেক্ট নির্ধারিত বাজেটের চেয়ে কম খরচে করা হয়েছে। ডিসেম্বরে এটি উৎক্ষেপন হওয়ার কথা থাকলেও, ফ্লোরিডায় ঝড়ের কারণে তা পিছিয়ে যায়। উৎক্ষেপণের পর এটি সফলভাবে কাজ করেছে। এই স্যাটেলাইটের মাধ্যমে ডিটুএইচ সার্ভিসের সাহায্যে সব টেলিভিশন চ্যানেল দেখার সুযোগ করে দেবে। যেসব জায়গায় ফাইবার অপটিক ক্যাবল সেবা পৌঁছেনি, সেখানে স্যাটেলাইটের মাধ্যমে দ্রুত গতির ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে দেয়া হবে।









Leave a reply