বরিশালে মেয়র প্রার্থী ডা. মনীষার ওপর হামলার অভিযোগ

|

বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) মেয়র প্রার্থী ডা. মনীষা চক্রবর্তীর ওপর হামলার অভিযোগ উঠেছে। আজ সোমবার সকালে জাল ভোটের প্রতিবাদ করায় তার ওপর হামলা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

ডা. মনীষা বলেন, সদর গার্লস স্কুল কেন্দ্রে এসে আমরা দেখলাম যে সমস্ত ব্যালটে মেয়রের সিল নৌকায় দেওয়া। আমরা যখন প্রিজাইডিং অফিসারকে জানালাম উনি কিছু করলেন না, উনি বসে থাকলেন। তারপরে যখন আমরা ব্যালট পেপারটা দেখতে গেলাম তখন আওয়ামী লীগের ব্যাজ পরা দুজন আমাকে ধাক্কা মেরে পেছন থেকে প্রচণ্ডভাবে আঘাত করে এবং আমার হাত থেকে ব্যালট নিয়ে ছিঁড়ে ফেলে। একজন লাল পাঞ্জাবি এবং আরেকজন নীল শার্ট পরা ছিল। আমার কাছে তাদের ছবিও আছে। আমার নখ পর্যন্ত ভেঙে গেছে। একজন মেয়র ক্যান্ডিডেটকে যদি তারা এভাবে আঘাত করে তাহলে তারা নিজেদের কোথায় চিন্তা করছে। তাহলে তো এই নির্বাচন করার আর কোনও অর্থ থাকে না।

তিনি আরও বলেন, আপনারা এখনও অফিসারের কাছে ছেঁড়া ব্যালট দেখতে পাবেন এবং দুইজন অফিসারই ইলেকশন কমিশনারের কাছে বলেছেন তাদের কাছ থেকে ব্যালট নিয়ে সিল মেরে দিয়ে দেওয়া হয়েছে। এই হচ্ছে অবস্থা। সারা বরিশালের প্রত্যেকটা কেন্দ্র থেকে খবর আসছে। প্রায় ১০০টা কেন্দ্র থেকে খবর এসেছে, প্রত্যেকটা জায়গায় একই কাজ করছে। সদরগঞ্জ স্কুল বরিশালের একটি প্রাণকেন্দ্র, এ কে স্কুল বরিশালের একটা সেন্টার। সেখানে বসে যদি সিল ঠেকানোর মতো কাজ করতে পারে তাহলে এই নির্বাচন কমিশন আসলে কী কাজ করছে সেটা জাতির কাছে একটা প্রশ্ন।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন প্রিজাইডিং কর্মকর্তা প্রভাস কুমার মণ্ডল। তিনি বলেন, হামলার ঘটনা ঢাহা মিথ্যা কথা। উল্টো উনি আমার এখানো এসে বিশৃঙ্খলা সৃইষ্ট করেছে। ৬০/৭০টা ব্যালট বিনষ্ট করেছে। উনি ছিঁড়ে ফেলেছেন। আমি তো দেখলাম না কে ওনার ওপর হামলা করেছে। এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা।

এদিকে ডা. মনীষার ওপর হামলার প্রতিবাদে আগামীকাল সারাদেশে বিক্ষোভ কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে বাসদ। এর আগে দুপুরে ভোট বর্জন করেন ডা. মনীষা চক্রবর্তী।









Leave a reply