পায়ুপথে ইয়াবা বহন, মাদ্রাসা শিক্ষক আটক

|

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:

পায়ুপথে ইয়াবা বহন করার অভিযোগে আবু মোসলেম উদ্দিন ওরফে ইদ্রিস মাস্টার নামে সাবেক এক মাদ্রাসা শিক্ষককে আটক করেছে র‌্যাব। শুক্রবার রাতে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানার শিমরাইল এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। পরে মেডিকেল পরীক্ষা পর নিশ্চিত হয়ে তার পায়ুপথ দিয়ে বের করা হয় স্কচটেপ দিয়ে মোড়ানো তিন প্যাকেট ভর্তি ২ হাজার ৪শ’ পিছ ইয়াবা।

শনিবার দুপুরে সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজীনগরে অবস্থিত র‌্যাব-১১ সদর দপ্তরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানানো হয়।

র‌্যাব জানায়, মোসলেম উদ্দিন কক্সবাজার জেলার মহেশপুর থানার শাহ্পুরী দ্বীপ এলাকার একটি কওমী মাদ্রায় শিক্ষকতা করতেন। প্রায় এক বছর যাবত ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত তিনি।

র‌্যাব-১১ এর ভারপ্রাপ্ত ব্যাটালিয়ান অধিনায়ক (ভারপ্রাপ্ত সিও) মেজর আশিক বিল্লাহ জানান, গত দুই মাস আগে এক ইয়াবা ব্যবসায়ীকে গ্রেফতারের পর আবু মোসেলম উদ্দিন সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যায়। তিনি একসাথে আড়াই থেকে তিন হাজার পিছ ইয়াবা নিজের পায়ুপথ দিয়ে পেটের ভিতরে প্রবেশ করিয়ে কক্সবাজার থেকে অভ্যন্তরীণ বিমানে এসে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় সরবরাহ করতেন। প্রতি চালানে মূল ডিলারদের কাছ থেকে তিনি বিশ হাজার টাকা করে পেয়ে থাকেন বলেও জানায় র‌্যাব।

র‌্যাব জানায়, গত এক বছরে বিশ থেকে পঁচিশবার তিনি এভাবে ইয়াবা নারায়ণগঞ্জে এনে সরবরাহ করেছেন। প্রতি মাসে তিন থেকে চারবার তিনি এভাবে ইয়াবা সরবরাহ করে থাকেন। এরই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার রাতে পায়ুপথে ইয়াবা নিয়ে কক্সবাজার থেকে বিমানে করে ঢাকায় আসেন তিনি।

এসময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিমানবন্দর থেকেই র‌্যাব তাকে অনুসরণ করে। এক পর্যায়ে তিনি নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল এলাকায় এলে র‌্যাব তাকে আটক করে স্থানীয় একটি বেসরকারি মেডিক্যাল সেন্টারে নিয়ে শারীরিক পরীক্ষা করায়। সেখানে ডিজিটাল এক্সরে রিপোর্টে তার পেটে ইয়াবার প্রমাণ পাওয়া যায়। র‌্যাব জিজ্ঞাসাবাদ করলে আবু মোসলেম উদ্দিন ইয়াবা বহনের বিষয়টি স্বীকার করেন। পরে তিনি নিজেই পায়ুপথ দিয়ে ইয়াবার প্যাকেট বের করেন।

মোসলেম উদ্দিনের বিরুদ্ধে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মাদক আইনে মামলা দায়ের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানায় র‌্যাব।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply