শুধু তথ্যচিত্র নয়, ভারতে বিবিসিকে নিষিদ্ধ করতে সুপ্রিম কোর্টে মামলা

|

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির সম্প্রচারিত ‘ইন্ডিয়া: দ্য মোদি কোয়েশ্চন’ তথ্যচিত্রের কারণে ভারতের রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে তোলপাড়। এরই মধ্যে তথ্যচিত্রটি নিষিদ্ধ করা হয়েছে ভারতে। যদিও এ নিষেধাজ্ঞাকে পাল্টা চ্যালেঞ্জ জানিয়ে মামলা দায়ের হয়েছে। তবে এবার ভারতে গোটা সংবাদমাধ্যমকেই নিষিদ্ধ করতে আর্জি জানানো হয়েছে দেশটির সুপ্রিম কোর্টে। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

ভারতের ‘হিন্দু সেনা’ সভাপতি বিষ্ণু গুপ্ত এবং জনৈক বীরেন্দ্রকুমার সিংহের পক্ষ থেকে সুপ্রিম কোর্টে এই জনস্বার্থ মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। বলা হয়েছে, এই তথ্যচিত্র দেশ ও প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। ফলে এটিকে নিষিদ্ধের পাশাপাশি এ তথ্যচিত্র বানানোর জন্য বিবিসিকেও ভারতে নিষিদ্ধ করা হোক। একই সাথে বিবিসিতে কর্মরতদের বিরুদ্ধেও গোয়েন্দা সংস্থার তদন্তের দাবি জানানো হয়েছে দেশটিতে।

এই আবেদনটিকে জরুরি তালিকাভুক্তির জন্য আবেদনকারীদের শুক্রবার আবার তা উল্লেখ করার নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। এর আগে বৃহস্পতিবার এই তথ্যচিত্রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করে ব্রিটেনের প্রবাসী ভারতীয়রা। সেখানে দেশটির আদালত স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, বিবিসি সংবাদমাধ্যম হিসেবে সম্পূর্ণ স্বাধীন।

মূলত, দু’দশক আগে নরেন্দ্র মোদি গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন গোধরা-কাণ্ড এবং তার পরবর্তী সাম্প্রদায়িক সহিংসতার কথা তুলে ধরা হয়েছে এক ঘণ্টার তথ্যচিত্র ‘ইন্ডিয়া:দ্য মোদি কোয়েশ্চন’-এ। এই তথ্যচিত্র নিয়ে শুরু থেকেই আপত্তির কথা জানিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। তথ্যচিত্রটি প্রকাশ করার পর এটি দেখানোর ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয় গোটা ভারতে। এমনকি তথ্যচিত্রটি দেখানোয় গোটা ভারতে ব্যাপক ধরপাকড় শুরু হয়। একাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এটি প্রদর্শনের সময় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার মতো কাণ্ডও ঘটে ভারতে।

ভারত সরকারের এ তথ্যচিত্র নিয়ে আপত্তি থাকলেও বিবিসি বলছে, যথেষ্ট তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ করে এবং গবেষণার পরই এটি তৈরি করা হয়েছে। তবে এ তথ্যচিত্র নিয়ে ভারত সরকারের এত রাখঢাক নীতিকে ‘সেন্সরশিপ’ হিসেবে আখ্যা দিচ্ছে বিরোধী দলগুলো।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply