জেসিআই বাংলাদেশের ‘প্রেসিডেন্সিয়াল মেজবান’ অনুষ্ঠিত

|

আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল (জেসিআই) বাংলাদেশের ‘প্রেসিডেন্সিয়াল মেজবান অ্যান্ড ফ্যামিলি ডে আউট’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। একসাথে জেসিআই বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাহী কমিটির এবং লোকাল প্রেসিডেন্টদের অভিষেকও অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (২১ জানুয়ারি) রাজধানীর মাদানী রোড সংলগ্ন গ্রিন ভিল আউটডোরে দিনব্যাপী এই বিশাল মিলেনমেলায় সংগঠনটির প্রায় ৫ হাজার তরুণ সদস্য এবং অতিথির সমাগম ঘটে। গত কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় এবারো নানা আয়োজনে মাতেন সবাই।

অনুষ্ঠানটির সভাপতিত্ব করেন জেসিআই বাংলাদেশের ন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট জিয়াউল হক। এছাড়াও জেসিআই বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাহী কমিটির সকল সদস্য ও লোকাল চ্যাপ্টারের প্রেসিডেন্টরাও এতে অংশ নেন।

এ প্রসঙ্গে জেসিআই বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট জিয়াউল হক বলেন, প্রতি বছর আমরা ‘প্রেসিডেন্সিয়াল মেজবান অ্যান্ড ফ্যামিলি ডে আউট’র আয়োজন করি। তবে অন্যবারের চেয়ে এবারের আয়োজন ছিল প্রায় দ্বিগুণ পরিসরে। এটি জেসিআই বাংলাদেশের এ যাবতকালের সবচেয়ে বড় আয়োজন। আমাদের সদস্য এবং পরিবারের সবার যান্ত্রিক জীবনের মধ্যে একটু আনন্দের ব্যবস্থা করাই এর উদ্দেশ্য।

এই সফল উদ্যোক্তা আরও বলেন, জেসিআই বাংলাদেশ তরুণদের নানামুখী উন্নয়নে কাজ করে আসছে। বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজনের মাধ্যমে তাদের নেতৃত্বে দক্ষ করে তুলতে ও সদস্যদের মধ্যে আন্তরিকতা বৃদ্ধি করতেই মূলত এতো বড় আয়োজন করা।

অনুষ্ঠানটি প্রসঙ্গে জেসিআই বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক নিয়াজ মোর্শেদ এলিট বলেন, জেসিআই বাংলাদেশ আমাদের দেশের সর্ববৃহৎ তরুণ সংগঠন। তরুণ উদ্যোক্তা এবং নেতা তৈরির এই পাঠশালা দিনদিন আরও বড় হচ্ছে। আমি সংগঠনের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করছি।

দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানকে মূলত কয়েকভাগে সাজানো হয়। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত জেসিআই বাংলাদেশের সদস্যদের জন্য রাখা হয় নানা রকমের খেলাধুলার আয়োজন। সদস্যদের জন্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের বহুমাত্রিক ঐতিহ্যবাহী খাবারের আয়োজন মেজবানেরও ব্যবস্থা রাখা হয়।

মেজবান অনুষ্ঠান শেষে সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা শুরু হয়। যেখানে সংগঠনটির ৩৫টি চ্যাপ্টারের সদস্যদের গান, নাচ ও আবৃত্তিসহ বিনোদনমূলক নানা উপস্থাপনায় সবাইকে মাতিয়ে রাখতে দেখা যায়। তবে এই আয়োজনে সবচেয়ে বড় আকর্ষণ ছিল জেসিআই বাংলাদেশের ২০২৩ সালের জাতীয় কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠান। সকল সদস্যদের উপস্থিতিতে জমকালো আয়োজনে জাতীয় নির্বাহী কমিটির প্রত্যেক সদস্যকে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়। একইসাথে তুলে ধরা হয় সংগঠনের পুরো বছরের পরিকল্পনা।

জেসিআই বাংলাদেশের ন্যাশনাল সেক্রেটারি জেনারেল এম কামরুল ইসলাম চৌধুরী ইভেন্ট ডিরেক্টর এবং ন্যাশনাল ভাইস প্রেসিডেন্ট শান শাহেদ ইভেন্টের কনভেনার হিসেবে কাজ করেন। কো-কনভেনার ছিলেন ন্যাশনাল ভাইস প্রেসিডেন্ট এজাজুল হাসান খান এবং ন্যাশনাল ভাইস প্রেসিডেন্ট আরেফিন রাফি আহমেদ।

উল্লেখ্য, জেসিআই ১৮ থেকে ৪০ বছর বয়সী তরুণ নাগরিকদের সমন্বয়ে গড়া আন্তর্জাতিক একটি সংগঠন। মানসম্মত সমাজ গড়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশে বিশেষ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে জেসিআই বাংলাদেশ। এখন এই সংগঠনটির ১২০টিরও বেশি দেশে প্রায় চার লাখেরও বেশি সক্রিয় সদস্য রয়েছেন।

/এনএএস





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply