নওগাঁয় গৃহবধূর ৬টি মৃত সন্তান প্রসব 

|

নিজস্ব প্রতিবেদক, নওগাঁ:

নওগাঁ সদর হাসপাতালে মৌসুমী আকতার নামে এক গৃহবধূ ৬টি মৃত সন্তান প্রসব করেছেন। গর্ভবতী হওয়ার ৪ মাসের মধ্যেই এই প্রসবের ঘটনাটি ঘটে।

শুক্রবার রাতে নিজ বাড়িতে একটি ও আজ শনিবার সকাল ১০ টার দিকে নওগাঁ সদর হাসপাতালে পর পর ৫টি মৃত সন্তান প্রসব করে মৌসুমী আকতার। নওগাঁয় কোন গৃহবধু এক সাথে ৬ টি মৃত সন্তান প্রসবের ঘটনা এই প্রথম।

নওগাঁ সদর হাসপাতালের তত্ত্বাধায়ক ডা. রওশন আরা খানম জানান, গর্ভবতী হওয়ার পর স্বাভাবিক ভাবে সন্তান প্রসব হতে ৩৭ থেকে ৪০ সপ্তাহ সময় লাগে। কিন্তু এই প্রসুতির ক্ষেত্রে স্পন্টানিয়াস এ্যাবরশান (আপনা-আপনি গর্ভপাত) হয়েছে। যার কারণে মাত্র ১৬ সপ্তাহে ৬টি মৃত সন্তান প্রসব করেছে। মৃত সন্তানগুলো ছেলে সন্তান ছিলো বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

মৌসুমী আকতারের স্বামী শেখ রানা জানান, ২০১০ সালে নওগাঁর মান্দা উপজেলার ভরোট্র কাঠেরডাঙ্গা গ্রামের ফজের আলীর মেয়ে মৌসুমীর সাথে তার বিয়ে হয়। দীর্ঘ ৮ বছর নিঃসন্তান ছিলেন তারা। গত এপ্রিল মাসে তার স্ত্রীর সন্তান সম্ভাবা হওয়ার কথা শোনা যায়। স্থানীয় ডাক্তারের পরামর্শে নওগাঁর একটি ডায়াগনিস্টিক সেন্টারে আলট্রাসোনোগ্রাম করার পর জানতে পারেন তার স্ত্রীর পেটে ৬টি সন্তান রয়েছে। এরপর থেকে গাইনী ডাক্তারের অধীনে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।

হঠাৎ করে শুক্রবার বিকেলে মৌসুমী আকতার অসুস্থ হয়ে পড়েন। শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে নওগাঁ শহরের খাস নওগাঁয় মৌসুমীর স্বামী শেখ রানার বাসায় একটি মৃত সন্তান প্রসব করে। এ সময় মৌসুমী আকতারের অবস্থার অবনতি হলে তাকে শুক্রবার রাত ৯টার দিকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

শনিবার সকাল ১০ টার দিকে আরো ৫টি মৃত সন্তান প্রসব করেন তিনি। বর্তমানে তাকে নওগাঁ সদর হাসপাতালের গাইনি বিভাগে চিকিৎসাধীন রাখা হয়েছে।

নওগাঁ সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. রওশন আরা খানম আরো জানান, বর্তমানে প্রসুতি মৌসুমী আকতার সুস্থ আছেন। একের অধিক সন্তান গর্ভে থাকলে প্রসুতিকে স্পেশাল কেয়ার নিতে হয়। আর মৌসুমীর ক্ষেত্রে ৬টি সন্তান গর্ভে থাকায় অনেকটাই ঝুঁকিপূর্ণ ছিলেন তিনি।









Leave a reply