বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের স্মরণে দিনব্যাপী স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি অনুষ্ঠিত

|

যমুনা গ্রুপের প্রয়াত চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের স্মরণে হুরাইন এইচটিএফ লিমিটেড কর্তৃক আয়োজিত এবং ‘নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশনে’র ব্লাড ব্যাংক প্রকল্পের সহযোগিতায় দিনব্যাপী স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। দিনব্যাপী এ মহতী কর্মকাণ্ডে যমুনা গ্রুপের প্রায় দুইশ’ কর্মকর্তা-কর্মচারী অংশ নেন। এ সময় তারা স্বেচ্ছায় রক্তদান করেন।

বুধবার (২৮ ডিসেম্বর) সকালে যমুনা ফিউচার পার্কের সপ্তম তলায় যমুনা গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান ‘হুরাইন হাই-টেক ফেব্রিক্স লিমিটেড’ (হুরাইন এইচটিএফ লিমিটেড) চত্বরে গ্রুপের পরিচালক সুমাইয়া রোজালিন ইসলাম স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, তার বাবা ও যমুনা গ্রুপের প্রয়াত চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম জীবদ্দশায় সারাজীবন মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। বাবার স্মরণে এ মহতী উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ কর্মসূচি যমুনা গ্রুপের কর্মরত হাজার হাজার জনবলের জরুরি রক্তের প্রয়োজন মেটাতে সহায়তা করবে। এ ক্যাম্পেইনের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে, ‘ওয়ার্ক ফর হিউম্যানিটি’ অর্থাৎ, মানবতার জন্য কাজ। মহতী এ কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে আমার বাবা সবার মাঝে বেঁচে থাকবেন।

সুমাইয়া রোজালিন ইসলাম আরও বলেন, আমরা মনে করি, সমাজের প্রতি আমাদের দায়বদ্ধতা আছে, দায়িত্ব আছে। এজন্য নুরুল ইসলাম ফাউন্ডেশনের তত্ত্বাবধানে নুরুল ইসলাম ব্লাড ব্যাংকের সহায়তায় হুরাইনের এ আয়োজন। হুরাইন এইচটিএফ লিমিটেডের উদ্যোগে দ্বিতীবার শুরু হওয়া এ কর্মসূচির মাধ্যমে প্রাথমিকভাবে দুইশ’ ব্যাগ রক্তদান করা হবে। এভাবে ধাপে ধাপে এক লাখ ব্যাগ রক্ত অনুদান দেয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। স্বেচ্ছায় রক্তদান প্রতিষ্ঠান কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন এতে সার্বিক সহায়তা করছে। কোয়ান্টামের সঙ্গে এ সংক্রান্ত একটি চুক্তিও স্বাক্ষরিত হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি আমাদের প্রধান কার্যালয় এবং ফ্যাক্টরিতে কর্মরত জনবল থেকে বছরে চারবার রক্ত সংগ্রহ করবে। যমুনা গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠনগুলো কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ করবে।

রক্তদান অনুষ্ঠানে হুরাইন এইচটিএফ লিমিটেডের চিফ মার্কেটিং অফিসার (সিএমও) আবদুল হাকিম বলেন, যমুনা গ্রুপের প্রয়াত চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। তার অনুপস্থিতিতে তার স্ত্রী ও সন্তানেরা সেই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখেছেন। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ছাড়াও সামাজিক সম্প্রীতি ও আর্ত মানবতার সেবায় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। যমুনা গ্রুপের পরিচালক সুমাইয়া রোজালিন ইসলামের সুচিন্তার ফসল এই স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি। হুরাইন এইচটিএফ লিমিটেডের প্রধান কার্যালয় এবং হবিগঞ্জের মাধবপুরের বেজোড়ায় হুরাইন এইচটিএফ লিমিটেডের কর্পোরেট অফিস ও ফ্যাক্টরিতে প্রতি বছর চারবার করে রক্তদান কর্মসূচি পরিচালিত হবে। আমি যমুনা গ্রুপের প্রয়াত চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের রুহের মাগফিরাত কামনা করছি।

এ সময় কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের কো-অর্ডিনেটর শেখ মো. ফয়সাল বলেন, যমুনা গ্রুপের সঙ্গে স্বাক্ষরিত এমওইউ অনুসারে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের প্রশিক্ষিত চিকিৎসক, নার্স ও স্বেচ্ছাসেবীরা সার্বক্ষণিক সহায়তা দিচ্ছেন। কোয়ান্টামের বিশ্বমানের ল্যাব ও ফ্রিজে এ রক্ত সংরক্ষণ করা হবে। যমুনা গ্রুপে কর্মরত কারও রক্তের দরকার হলে তাদের জরুরিভিত্তিতে রক্ত সরবরাহ করা হবে। আগামী ২৬ জানুয়ারি হবিগঞ্জে হুরাইন এইচটিএফ ফেব্রিক্স লিমিটেডের ফ্যাক্টরিতে এ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে, দিনব্যাপী কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন হুরাইন এইচটিএফ ফেব্রিক্স লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার (অডিট) জুলফিকার আলী, মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা বিভাগের পরিচালক আফসার উদ্দিন, ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (প্রশাসন) জাহাঙ্গীর আলম, কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের চিকিৎসক, প্যাথলোজিস্ট ল্যাব টেকনেশিয়ান ও যমুনা গ্রুপের অন্যান্য অঙ্গ প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারী প্রমুখ।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply