বিকাশে প্রতারক চক্রের ৫ সদস্য আটক

|

ফরিদপুর প্রতিনিধি
ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা উপজেলার বিভিন্ন জায়গা থেকে বিকাশে প্রতারক চক্রের ৫ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব। এই চক্রটি বিভিন্ন ভাবে প্রতারণা করে বিকাশ গ্রাহকদের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়। আটককৃতদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ মোবাইল ফোন, সিম কার্ড ও ২০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

আটককৃতরা হলো ভাঙ্গা উপজেলার মিয়াপাড়া গ্রামের কুদ্দুস মাতুব্বরের ছেলে বিল্লাল মাতুব্বর (৩০), সাহেব আলী মোল্লার ছেলে সোহেল মোল্লা (২২), একই উপজেলার কনিকান্দা গ্রামের আলমগীর হাওলাদারের ছেলে মো. রাসেল হাওলাদার (২৭), ইবাদত মোল্যার ছেলে জুয়েল মোল্লা (২১) ও দিনাজপুর জেলার বিরামপুর উপজেলার পলিখাপুর গ্রামের তাজের উদ্দিন মন্ডলের ছেলে আতিউর রহমান(২৫)।

র‌্যাব ৮ ফরিদপুর সিপিসি ২ এর অধিনায়ক মো. রইছ উদ্দিন জানান, আজ রবিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে এই ৫ প্রতারককে আটক করে র‌্যাব সদস্যরা।

তিনি জানান, আটককৃতরা উত্তরবঙ্গের কয়েকটি জায়গায় বিশেষ করে দিনাজপুর ও লালমনিরহাটের কতিপয় অসাধু বিকাশ এজেন্টের মাধ্যমে ভুয়া বিকাশ একাউন্ট খুলে ফরিদপুরের ভাঙ্গার সংঘবদ্ধ বিকাশ প্রতারক চক্রের সহায়তায় মানিকগঞ্জ জেলার হাবিবুর রহমান নামের এক বিকাশ এজেন্টের ৪ লক্ষ একষট্টি হাজার নয়শত ছাপান্ন টাকা এবং শরিয়তপুর জেলায় কর্মরত এক পুলিশ সদস্যের একাউন্ট থেকে প্রতারণার মাধ্যমে ৭ হাজার একশত পনের টাকা হাতিয়ে নেয়।

এই ঘটনায় ভুক্তভোগীরা মানিকগঞ্জ ও শরীয়তপুরের নড়িয়া থানায় সাধারণ ডায়েরি করে একই সাথে বিষয়টি র‌্যাবকে জানায়। র‌্যাব গোয়েন্দা তৎপরতা ও প্রযুক্তির সহায়তায় আটককৃতদের সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পায়।

সেই অনুযায়ী জেলার ভাঙ্গা থানাধীন শিমুল বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিকাশ এজেন্ট বিল্লাল টেলিকম এর সত্ত্বাধিকারী বিল্লাল মাতুব্বরকে আটক করে। পরে তার দেয়া তথ্যমতে বিকাশ প্রতারক চক্রের অপর সদস্যদেরকে ভাঙ্গা থানাধীন মিয়া পাড়া ও কনিকান্দা গ্রাম থেকে আটক করা হয়। এই চক্রের বাকী সদস্যদের ধরতেও অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তিনি।

আটককৃতদের ফরিদপুরে ভাঙ্গা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। এই ঘটনায় এই থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে র‌্যাব।









Leave a reply