‘বি’ ক্যাটাগরি সুবিধায় কারগারে নওয়াজ শরিফ

|

দুর্নীতি মামলায় কারাগারে আছেন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। সেখানে ‘বেটার ক্যাটাগরি’ সুবিধায় থাকছেন তিনি। কারাগারে যে প্রকোষ্ঠে নওয়াজকে রাখা হয়েছে সেখানে এর আগে ছিলেন আরেক সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রাজা গিলানি।

পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ‘ডন’ জানিয়েছে, কারাগারে নওয়াজের কক্ষে এসি নেই, একটি ফ্যান আছে। আছে একটি বিছানা ও ২১ ইঞ্চি টেলিভিশন। কয়েক বছর আগে লাহোর হাইকোর্টের নির্দেশনায় পাঞ্জাবের কারাবিধি পরিবর্তিত হয়। তখন থেকে বন্দিদের ‘অর্ডিনারি ক্যাটাগরি’ ও ‘বেটার ক্যাটাগরি’ নামের দুইটি ভাগে বিভক্ত করে সুবিধা দেওয়া শুরু হয়। সে অনুযায়ী নওয়াজকে ‘বেটার ক্যাটাগরি’ সুবিধা দেয়া হচ্ছে।

এর আগে গতকাল স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টায় গ্রেফতারের পর নওয়াজকে এক রাত কাটাতে হয়েছে রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা কারাগারে। মেয়ে মরিয়মকে প্রথমে একসাথে রাখা হলেও পরে রাতেই তাকে পাঠানো হয় সিহালা পুলিশ প্রশিক্ষণ কলেজের রেস্ট হাউজে। সেটিকেই এখন সাব জেল ঘোষণা করা হয়েছে।

এদিকে, পাকিস্তানের দুর্নীতি দমন আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ করেছে তার দল পাকিস্তান মুসলিম লীগ (নওয়াজ)। ইসলামাবাদ উচ্চ আদালতে অ্যাভেনফিল্ড মামলার রায় খতিয়ে দেখার আবেদন জানান সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ ও তার মেয়ে মরিয়মের আইনজীবী। সোম বা মঙ্গলবার এর ওপর শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়েশনের সাবেক প্রেসিডেন্ট আলি আহমেদ কুর্দ বলেন, গণতন্ত্র এবং দুর্বলের অধিকার আদায়ের লড়াই এটি। পানির মতো পরিষ্কার নওয়াজ শরিফের সাথে অন্যায় করা হচ্ছে। দুর্নীতি মামলার নামে যে খোঁড়া যুক্তি দাঁড় করানো হচ্ছে সেটা হাস্যকর। আমরা আইনজীবীরা সবসময় ন্যায়ের পক্ষে দাঁড়িয়েছি, আজও আছি।

এদিকে, নির্বাচনের আগ-মুহূর্তে সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে কারাগারে পাঠানোর ঘটনায় উত্তপ্ত পিএমএলএন শিবির। শুক্রবার রাত থেকেই পুলিশের সাথে সমর্থকদের সঙ্গে চলছে দফায়-দফায় সংঘর্ষ। দলটির অনেক নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে।

ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টিবিলিটি ব্যুরো- এনএবি’র দায়ের করা দুর্নীতি মামলার ভিত্তিতে ৬ জুলাই নওয়াজ শরিফকে ১০, মেয়ে মরিয়মকে ৭ এবং জামাতা সফদার আওয়ানকে এক বছরের কারাদণ্ড দেন দুর্নীতি বিরোধী আদালত। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ অবৈধভাবে লন্ডনের অ্যাভেনফিল্ড ভবনের চারটি ফ্ল্যাটের মালিকানা নিয়েছেন তারা।

যমুনা অনলাইন: এফএম/টিএফ









Leave a reply