পাওনা টাকা চাওয়ায় হত্যা, অভিযুক্তের বাড়িতে আগুন

|

গাইবান্ধা প্রতিনিধি
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে পাওনা টাকা চাওয়ায় আব্দুর রহমান মানু (৩৫) নামে এক ব্যবসায়ীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী আগুন দিয়ে অভিযুক্তের বাড়ী পুড়িয়ে দিয়েছে।

খবর পেয়ে পুলিশ শনিবার (১৪ জুলাই) দুপুরে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জ বাজার এলাকা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে।

আব্দুর রহমান মানু গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কোচাশহর ইউনিয়েেনর পেপুলিয়া গ্রামের মৃত আইজ আলীর ছেলে। আব্দুর রহমান হোসিয়ারী ব্যবসায়ী ছিলেন।

স্বজনদের অভিযোগ, চাকুরী দেয়ার কথা বলে আব্দুর রহমান মানুর কাছ থেকে মহিমাগঞ্জ বাজারের ব্যাংক কর্মকর্তা মশিউর রহমান ৫ লক্ষ ৬৫ হাজার টাকা গ্রহণ করেন। এরপর থেকে চাকরি না দিয়ে টালবাহানা শুরু করে। এ নিয়ে একাধিকবার সালিশ বৈঠকের পর ১ লক্ষ টাকা ফেরত দেয় মশিউর। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় বাকি টাকা দেয়ার কথা বলে আব্দুর রহমানকে তার বাড়িতে ডেকে নেয় মশিউর। এরপর আব্দুর রহমান রাতে বাড়ি ফেরেনি। অনেক খোঁজাখুজি করেও আব্দুর রহমানের সন্ধান পাওয়া যায়নি।

শনিবার সকালে তাকে খুজঁতে পরিবারের লোকজন মশিউরের বাড়িতে যায়। এসময় বাড়ির সামনে পা-বাধা অবস্থায় আব্দুর রহমানের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয় স্বজনরা।

স্বজনদের অভিযোগ, মশিউর আব্দুর রহমানকে ডেকে নিয়ে গিয়ে নির্যাতনের পর হত্যা করে লাশ ঝঁলিয়ে রাখে। হত্যার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্ত শাস্তির দাবি জানান।

এদিকে লাশ দেখার পর স্বজন ও বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী মশিউরের বাড়িতে হামলা চালিয়ে আগুন ধরে দেয়। আগুনে বাড়ীর আসবাবপত্র সহ যাবতীয় মালামাল পুরে যায়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুজিবুর রহমান বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি হত্যাকাণ্ড কিনা তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক আমিরুল ইসলাম বলেন, আগুনে বসতবাড়ির ঘরে থাকা মালামাল পুড়ে গেছে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা স্থানীয়দের সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।

তবে অভিযুক্ত মশিউর রহমান ও পরিবারের লোকজন ঘটনার পর থেকে পলাতক থাকায় তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।









Leave a reply