প্রধানমন্ত্রী আসছেন, দৃষ্টিনন্দন আলোকসজ্জায় সেজেছে পাবনা শহর

|

পাবনা প্রতিনিধি
পারমাণবিক বিদ্যুৎ উৎপাদনের যুগে আরো একধাপ এগিয়ে যাওয়ার অপেক্ষায় বাংলাদেশ। আগামীকাল শনিবার (১৪ জুলাই) ‘রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের’ দ্বিতীয় ইউনিটে প্রথম কংক্রিট ঢালাই কাজের মাধ্যমে এমন উচ্চতায় যোগ হবে বাংলাদেশের নাম। শনিবার এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর বিকেলে পাবনা পুলিশ লাইন মাঠে পাবনা জেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখানে ৫০টি বিভিন্ন উন্নয়নমুলক কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন ও উদ্বোধন করবেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর আগমন ঘিরে পাবনায় এখন সাজ সাজ রব। ইতিমধ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ করেছে জেলা প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।

একদিকে পাবনার ‘রুপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের দ্বিতীয় ইউনিটের প্রথম কংক্রিট ঢালাই’, অন্যদিকে পাবনাবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ‘ঈশ্বরদী-পাবনা-ঢালারচর’ রেলপথ উদ্বোধন। এমন নানা উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করতে আগামীকাল শনিবার পাবনায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাই জেলাজুড়ে এখন সাজ সাজ রব। ব্যানার, ফেস্টুন, আলোকজসজ্জা আর তোড়নে পাবনা সেজেছে নতুন সাজে।

পাবনা সার্কিট হাউজ, পুলিশ লাইনস মাঠে সৌন্দর্য বর্ধনসহ চলছে শেষ সময়ের প্রস্তুতি। প্রধানমন্ত্রীর আগমন ঘিরে দলীয় নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষের মাঝে বিরাজ করছে উৎসাহ-উদ্দীপনা। পাবনাবাসীর জন্য প্রধানমন্ত্রী আরো নতুন উন্নয়নের ঘোষণা দেবেন এমন প্রত্যাশা সকলের।

সফর সূচী থেকে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শনিবারবেলা সাড়ে ১১টায় রুপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের দ্বিতীয় চুল্লির প্রথম কংক্রিট ঢালাই উদ্বোধন ও সংক্ষিপ্ত সুধী সমাবেশে বক্তব্য দেবেন। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি থাকবেন রাশান ফেডারেশনের উপ-প্রধানমন্ত্রী মি. ইউরি ইভানোভিচ বোরিসভ। শুভেচ্ছা বক্তব্য দিবেন আইএইএ’র পরিচালক মি. দোহী হান। স্বাগত বক্তব্য দিবেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: আনোয়ার হোসেন।

পরে বিকেল সাড়ে ৩টায় পুলিশ লাইনস মাঠে জেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখানে ফলক উন্মোচনের মাধ্যমে নবনির্মিত ঈশ্বরদী-পাবনা-ঢালারচর রেলপথ, ঈশ্বরদী থেকে রুপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র পর্যন্ত রেলপথ, ঈশ্বরদী থানা ভবন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স, পাবনা মেডিকেল কলেজের ছাত্রাবাস ও ছাত্রী নিবাস, বিভিন্ন উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুৎতায়ন প্রকল্প সহ ৫০টি বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন ও ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

পাবনা জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পাবনা সদর আসনের সংসদ সদস্য গোলাম ফারুক প্রিন্স বলেন, প্রধানমন্ত্রী পাবনা সফর ঘিরে দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের মাঝে উৎসবের আমেজ ও ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে। দলীয় প্রধানের জনসভা সফল করতে আমরা জেলা, উপজেলা আওয়ামলীগ বর্ধিত সভা করে সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। জনসভায় এসে মানুষ যেন কোনো দূর্ভোগে না পড়েন তার জন্য পর্যাপ্ত পানি ও টয়লেটের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান বলেন, আর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী বলেন, প্রকল্পের গুরুত্ব বোঝাতে প্রধানমন্ত্রী বারবার পাবনায় আসছেন। ইতিমধ্যে তিনবার তিনি পাবনা সফর করেছেন। আগামীতে আরো কয়েকবার আসবেন। এর মাধ্যমে নতুন উচ্চতায় আসীন হবে বাংলাদেশ। প্রথম চুল্লীর কাজ শুরু উদ্বোধনের এক বছর পর দ্বিতীয় চুল্লির কাজ উদ্বোধন করার কথা। সেখানে আমরা মাত্র সাত মাস পরই দ্বিতীয় চুল্লির ঢালাই কাজ শুরু করতে যাচ্ছি। তার মানে এই প্রকল্পের যে সময় তার মধ্যেই আমরা কাজ শেষ করতে পারবো।

জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন ও পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির পিপিএম জানান, প্রধানমন্ত্রীর আগমন ও জনসভা শান্তিপূর্নভাবে শেষ করতে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সে লক্ষ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি শেষের দিকে। প্রধানমন্ত্রীর আগমন ঘিরে জেলাবাসীর মাঝে বেশ উদ্দীপনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। আশা করি, নিশ্চিদ্র নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে ও সবার সহযোগিতায় সুষ্ঠুভাবে সব আয়োজন শেষ হবে।

প্রসঙ্গত: গেলো বছরের ৩০ নভেম্বর ‘রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প’র প্রথম চুল্লি প্রথম কংক্রিট ঢালাই এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।









Leave a reply