বাদশাহ ফয়সালের পাশে মাস্টার ইয়োদা!

|

১৯৪৫ সালে সৌদি বাদশাহ ফয়সাল যখন জাতিসংঘ সনদে সই করছিলেন, তখন ঠিক তার ডান পাশে বসে ছিলেন মাস্টার ইয়োদা! স্টার ওয়ার্সের দুর্ধর্ষ জেডাই নাইট!  অবিশ্বাস্য মনে হলেও এমনটাই উঠে এসেছে সৌদি আরবের স্কুল পর্যায়ের ইতিহাস বইয়ে।

বলা বাহুল্য ছবিটি কারসাজি করা। কিন্তু এই কারসাজি করা ছবিই ঘটনাচক্রে জায়গা করে নিয়েছে বইয়ের পাতায়। এমন অমার্জনীয় অপরাধের জন্য সৌদি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও তার সব সহযোগীকে গতকাল মঙ্গলবার বরখাস্ত করা হয়েছে।

সৌদি গণমাধ্যমে জানানো হয়েছে, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা মোহাম্মদ বিন আত্তিয়াহ আল হার্থি পাঠ্যক্রম প্রণয়নের দায়িত্ব ছিলেন। তার সাথে যত সম্পাদকমণ্ডলী ছিলেন, তারাও চাকরি হারিয়েছেন।

বাদশাহ ফয়সালের সাথে মাস্টার ইয়োদার সাদাকালো ছবিটা ২৬ বছর বয়সী শিল্পি আবদুল্লাহ আল শেরির কারসাজি। আরবের ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ সব মুহূর্তের ছবিগুলোতে তিনি এমন ফিল্মি চরিত্র যোগ করে থাকেন। যেমন একটা ছবিতে দেখা যায়, ১৯১৯ সালে প্যারিস শান্তিচুক্তির সময় লরেন্স অফ আরাবিয়া এবং ইরাকি বাদশাহর পেছনে দাড়িয়ে আছেন, স্টার ওয়ার্সের ভিলেইন ডার্থ ভেডার। ওই চুক্তিতেই ভেঙ্গে টুকরো টুকরো হয়ে যায় মধ্যপ্রাচ্য।

শেরি বলেন, বাদশাহ ফয়সালের পাশে তিনি মাস্টার ইয়োদাকে বসিয়েছেন, কারণ দুজনই খুব বুদ্ধিমান। আর ইয়োদার গায়ের রং সবুজ। সৌদি আরবের পতাকাও একই রঙের।

শেরি এমন রূপক অর্থে ছবি বানালেও, সেটা নিয়েই এখন ঘাম ছুটছে সৌদি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের। শুধু দায়িত্বপ্রাপ্তদের বরখাস্ত করেই দায় মেটেনি। সারাদেশে ছড়িয়ে পড়া বইটি ফেরত নিয়ে চলছে ব্যাপক তোড়জোড়।

 









Leave a reply