বাজলো কি একটি যুগের বিদায় ঘণ্টা?

|

এমন অনেক ম্যাচ গেছে যখন তার একার অতিমানবীয় পারফর্মেন্সেই তিনি পর্তুগালকে পার করেছেন দারুণ দুর্বিপাকের বৈতরণী। সতীর্থদের কাজ ছিল কেবল উদযাপন। সুইসদের বিরুদ্ধে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো নেমেছিলেন যখন ৫ গোল দিয়ে ম্যাচের ভাগ্য লিখে দিয়েছে পর্তুগাল। যার মাঝেও সবিশেষ গনজালো রামোস; রোনালদোকে বেঞ্চে বসিয়ে পর্তুগালের জার্সিতে প্রথমবারের মতো শুরুর একাদশে নেমেই চলতি বিশ্বকাপের প্রথম হ্যাট্রিক করে যিনি নিজ হাতে লিখেছেন শেষ আটে যাওয়ার ঘোষণাপত্র। রোনালদো নেমে কেবলই উদযাপন করেছেন। সেটাই করার ছিল তার। কিন্তু, এখন হলো- এ দৃশ্যে কি রচিত হলো কোনো যুগ সমাপ্তির ঘণ্টা? আর কোনো গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে দেশের জার্সিতে কি সেরা একাদশে দেখা যাবে রোনালদোকে, এ প্রশ্নের জবাব দিতে লুসাইল স্টেডিয়ামে আজ রাতে হয়ে যাওয়া ম্যাচের রেফারেন্স প্রয়োজন পড়তে পারে।

গত সপ্তাহে দক্ষিণ কোরিয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচে উঠিয়ে নেয়ার পর করা প্রতিক্রিয়ার কারণে কোচ ফার্নান্দো তোরেসের সমালোচনার পরই রোনালদোর জায়গা অনিশ্চিত হয়ে পড়ে দলে। সেদিন উঠিয়ে নেয়ার পর অনেকটা সরাসরিই সান্তোসের ওপর নিজের অসন্তোষ প্রকাশ করেন রোনালদো। যা একদমই পছন্দ হয়নি কোচের। সেদিনের সংবাদ সম্মেলনেও সান্তোস পরিষ্কারভাবেই বুঝিয়ে দিয়েছিলেন যে রোনালদোর ওপর অসন্তষ্ট তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে সান্তোস বলেছিলেন, আমি এমনটা পছন্দ করি না। একদমই না, কোনোভাবেই না। এ ব্যাপারে জনসম্মুখে আমরা আর কোনো কথা বলবো না।

তার এ মন্তব্যের পর এটা পরিষ্কার ছিল যে তার মনে রোনালদোর অবস্থানের পরিবর্তন হয়েছে। এমনকি পরের ম্যাচে রোনালদো জায়গা পাবেন কি না সে বিষয়ে কথা বলতে সরাসরি অস্বীকার করেন পর্তুগিজ কোচ।

আজকের ম্যাচের আগে পর্তুগিজ সংবাদ মাধ্যম অনলাইনে একটি পোল চালু করে, যেখানে জানতে চাওয়া হয়-পর্তুগিজরা রোনালদোকে আজকের স্কোয়াডে দেখতে চান কি না? পোলের ফলাফলে দেখা গেছে ৭০ শতাংশ পর্তুগিজ চান যেনপো আজকের স্কোয়াডের রোনালদো থাকুন।

এদিকে, আজকের ম্যাচ শেষে দেয়া এক সাক্ষাতকারে রোনালদোকে বেঞ্চে বসানোর ব্যাপারে কোচ ফার্নান্দো সান্তোস বলেন, ক্রিস্টিয়ানো আর রামোস দুজনই ভিন্ন ধরনের খেলোয়াড়। জাতীয় দলের অধিনায়কের সাথে আমাদের কোনো সমস্যা নেই। আমাদের বন্ধুত্ব অনেক বছরের। আর সে (রোনালদো) উদাহরণ দেয়ার মতো একজন অধিনায়ক।

প্রসঙ্গত, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো পর্তুকালের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা এবং দলটির অধিনায়ক। গত মাসেই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাথে চুক্তি শেষ করেছেন তিনি। এটা এখন অনেকটাই নিশ্চিত যে, সৌদি ক্লাব আল নাসের এ যোগ দিচ্ছেন তিনি।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply