কম দামে শেয়ার বিক্রি করে পুঁজিবাজার থেকে বেরিয়ে পড়ছেন অনেকে

|

আলমগীর হোসেন:

গেলো কয়েক মাস ধরেই দরপতনের বৃত্তে ঘুরপাক খাচ্ছে দেশের পুঁজিবাজার। নানা উদ্যোগের পরও যা থামছে না। বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারই পড়ে আছে ফ্লোর প্রাইসে। এরপরও কমছে সূচক ও লেনদেনের পরিমাণ।

টানা দরপতনে পুঁজি হারিয়ে নিঃস্ব সাধারণ বিনিয়োগকারীরা। এরমধ্যে অনেকে কম দামে শেয়ার বিক্রি করে বাজার থেকে বেরিয়ে যাচ্ছেন। এ সময় প্রতিষ্ঠান আর বড় বিনিয়োগকারীরাও নিষ্ক্রিয়। বিনিয়োগকারীদের আস্থা না ফিরলে অর্থের যোগান বাড়িয়েও বাজার স্বাভাবিক করা সম্ভব নয় বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

আর বিনিয়োগকারীরা সংকট উত্তরণে কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ চান। বলছেন, এ অবস্থা চলতে থাকলে পথে বসতে হবে অনেককেই।
বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, টানা দরপতনে লেনদেন কমে ৩শ’ কোটির ঘরে নেমে এসেছে। যা দিয়ে ব্রোকারেজ হাউজগুলোরই টিকে থাকা দায়। বাজার গতিশীল করতে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফেরানোর বিকল্প নেই বলেও মনে করেন তারা।

ফার্স্ট ক্যাপিটালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাউছার আল মামুন বলেন, ফ্লোর প্রাইস কিংবা অন্য কোনো কারণে মার্কেট পড়ে যাচ্ছে, তা আমি বিশ্বাস করি না। আমি মনে করি, দেশের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক কারণে মানুষ প্যানিকড হয়ে যাচ্ছে। অর্থনীতি স্বাভাবিক হলে মানুষের মধ্যে আস্থা ফিরে আসবে। কোনো ধরনের সাবসিডিয়ারি বা কাউকে দিয়ে বিনিয়োগ করিয়ে এই মার্কেট স্বাভাবিক করা সম্ভব না।

মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ছায়েদুর রহমান বলেন, এটা স্পষ্টত যে, বিনিয়োগকারীদের মধ্যে কিছুটা আতঙ্ক বা হতাশা তৈরি হয়েছে। এ কারণে পুঁজি বাজারে তাদের অংশগ্রহণ অনেক কমে এসেছে। এইখানে অর্থের জোগান ও বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ বাড়াতে হবে ফ্লোর প্রাইস থেকে উঠে আসতে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, অর্থনৈতিক সংকট ছাড়াও রাজনৈতিক কারণেও নতুন বিনিয়োগে ভয় পাচ্ছেন অনেকেই। বাজার স্বার্থেই তাদের এ ভয় দূর করতে হবে। বড় বিনিয়োগকারী ও প্রতিষ্ঠানগুলো সক্রিয় করতে নিয়ন্ত্রক সংস্থার উদ্যোগ নেয়া দরকার বলেও মনে করেন তারা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান বলেন, ব্যক্তি পর্যায়ে যারা বড় বিনিয়োগকারী এবং প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে যারা আছেন তারা যেন সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। পাশাপাশি প্রতিদিনই অপারেশনটা যেন চালিয়ে যায়। তাদের কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে যে সমস্যাগুলো হচ্ছে এবং কখনও কখনও প্রতিবন্ধকতাও সৃষ্টি হচ্ছে, সেগুলো দূর করার ব্যাপারে সম্বিলিতভাবে কী ব্যবস্থা নেয়া যায়, সে ব্যাপারে একটা উদ্যোগ নেয়া দরকার।

বিনিয়োগকারীদের আস্থার সংকট কাটানো গেলে বাজার দ্রুতই গতিশীল হবে বলেও আশা বিশ্লেষকদের।

/এমএন





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply