অদম্য মিরাজ-মোস্তাফিজে বাংলাদেশের অবিশ্বাস্য জয়

|

অদম্য মিরাজ-মোস্তাফিজের ব্যাটিং নৈপুণ্যে ভারতের বিপক্ষে ১ উইকেটের জয় পেয়েছে টাইগাররা। ১৮৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৪ বল বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ।

১৩৬ রানের মাথায় নবম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। শেষ উইকেটে দলের হাল ধরেন অদম্য মেহেদী হাসান মিরাজ ও মোস্তাফিজুর রহমান। মিরাজ করেন ৩৯ বলে ৩৮ রান এবং মোস্তাফিজ করেন ১১ বলে ১০ রান।

১৮৭ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে প্রথম বলেই আউট হয়ে মাঠ ছাড়েন নাজমুল শান্ত। পরে এনামুল বিজয়কে নিয়ে প্রাথমিক ধাক্কা সামাল দেয়ার চেষ্টা করেন লিটন দাস। তবে বিজয়ও বেশিক্ষণ থিতু হতে পারেননি ক্রিজে। ১৪ রানে শিকার হন মোহাম্মদ সিরাজের। লিটন দাস আউট হন ৪১ রান করে। সাকিব ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ২৯ রান করে। আর মাহমুদউল্লাহ আউট হন ১৪ রান করে এবং মুশফিক বিদায় নেন ১৮ রানে। শেষ উইকেটে মোস্তাফিজুর রহমানকে সাথে নিয়ে জয়ের ভিত গড়েন মেহেদী মিরাজ। তাদের অর্ধশত রানের জুটিতে ঘরের মাঠে ভারতবধ করে বাংলাদেশ। মিরাজ ৩৮ ও মোস্তাফিজ ১০ রানে অপরাজিত থাকেন।

এর আগে মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ভারতকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় টাইগার ক্যাপ্টেন লিটন দাস। ঝকঝকে আলোময় দিনে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই চাপে পড়ে ভারত। দ্রুতই সাজঘরে ফেরে দলটির টপ অর্ডার। মিডল অর্ডার এসে কিছুটা চাপ সামলানোর চেষ্টা করলেও তা হতে দেননি বাংলাদেশি বোলাররা। সাকিব তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় ভারতীয় ব্যাটিং লাইন। দেশসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান একাই নিয়েছেন ৫ উইকেট। কম যাননি পেসার এবাদত হোসেনও। তিনিও নিয়েছেন ৪ উইকেট। এছাড়া ১টি উইকেট নিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

ভারতীয় লাইনে প্রথম আঘাত হানেন টাইগার স্পিনার মেহেদী মিরাজ। ইনিংসের ৬ষ্ঠ ওভারে দলীয় ২৩ রানের মাথায় মেহেদী হাসান মিরাজের শিকারে পরিণত হন ভারতীয় ওপেনার শিখর ধাওয়ান। পরে ১১তম ওভারে বোলিংয়ে এসে তিন বলের মধ্যে রোহিত শর্মা ও বিরাট কোহলিকে ফেরান সাকিব আল হাসান।

মাত্র ৪৯ রানের মাথায় ভারতের প্রথম তিন ব্যাটার আউট হওয়ার পর কে এল রাহুল ও শ্রেয়াস আইয়ার কিছুটা টেনে দেন দলীয় স্কোর। ৯২ রানের মাথায় এবাদতের শিকারে পরিণত হয়ে আইয়ারও ফিরে যান ৩৯ বলে ২৪ রান করে। ওয়াশিংটন সুন্দর এসে কিছুটা সঙ্গ দেন রাহুলকে। কিন্তু বেশি দূর যেতে পারেননি তিনিও। ব্যক্তিগত ১৯ রানে এবাদতের তালুবন্দি হন সাকিবের বলে। এরপর শাহবাজ আহমেদ, শারদুল ঠাকুর ও দীপক চাহার দাঁড়াতেই পারেননি। এরপর কে এল রাহুল এবাদতের বলে ক্যাচ তুলে দেন। সাজঘরে ফেরার আগে করেন ৭০ বলে দলীয় সর্বোচ্চ ৭৩ রান। পরে ৯ রান করে মোহাম্মদ সিরাজ আউট হলে ৪১.২ ওভারে ভারতের ইনিংস থামে ১৮৬ রানে।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply