বিদ্যুৎ নিয়ে কিছুদিন কষ্ট হয়েছিল, ভবিষ্যতে আর হবে না: প্রধানমন্ত্রী

|

বিদ্যুৎ নিয়ে আমাদের কিছুদিন কষ্ট হয়েছিল। ভবিষ্যতে আর হবে না ইনশআল্লাহ, জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার (৪ ডিসেম্বর) বিকেলে নগরীর পলোগ্রাউন্ড মাঠে চট্টগ্রাম মহানগর এবং উত্তর ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় এ কথা জানান তিনি। অনুরোধের সুরে এ সময় শেখ হাসিনা বলেন, আপনাদের কাছে অনুরোধ, সাশ্রয়ী হতে হবে। বিদ্যুৎ ব্যবহার সীমিত করতে হবে। আপনারা জানেন না, এই শীতকালে ইউরোপের ইংল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশের কী অবস্থা। মানুষ গরম পানি পাচ্ছে না। তারা রুম হিট করতে পারছে না। এক রুমের মধ্যে সমস্ত পরিবার নিয়ে থাকতে হচ্ছে। দোকানে গেলে জিনিস কিনতে পারে না। হয়তো এক প্যাকেট জিনিসের বেশি একটি পরিবার কিনতে পারবে না। এমন অবস্থা তাদের। আমি বলতে চাই, বাংলাদেশে এই অবস্থা হবে না। আমরা মানুষের সবরকম সুযোগ-সুবিধা অব্যাহত রাখবো। কিন্তু আপনাদের সহযোগিতা চাই।

সরকার প্রধান বলেন, সারা বিশ্বে এখন খাদ্য, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি তেলের অভাব। আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি আমাদের দেশের মানুষ যাতে ভালো থাকে। বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে আর কেউ ছিনিমিনি খেলতে পারবে না। জামায়াত-বিএনপিকে দেশের মানুষ আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না। আপনারা ভোট দিয়ে আবারও আওয়ামী লীগকে জয়যুক্ত করবেন। আপনারা হাত তুলে ওয়াদা করেন। আপনারাই আমার পরিবার, আপনারাই আমার সব।

১০ ডিসেম্বরের বিএনপির প্রিয় তারিখ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১০ ডিসেম্বর নাকি তারা ঢাকা অচল করে দেবে। ১০ ডিসেম্বর ১৯৭১ সালে এ দেশে বুদ্ধিজীবীদের হত্যার মিশন শুরু হয়েছিল। ১০ ডিসেম্বর সাংবাদিক সিরাজুদ্দীন হোসেনসহ বেশ কয়েকজন বুদ্ধিজীবীকে পাকিস্তানিরা ধরে নিয়ে যায়। পরে তাদের হত্যা করা হয়। অর্থাৎ এই দিনে বুদ্ধিজীবী হত্যার মিশন শুরু হয়। এ কারণেই এই তারিখ বিএনপির এত প্রিয়।

আরও পড়ুন: বাবা জেল থেকে বের হলেই চট্টগ্রামে নিয়ে আসতেন: প্রধানমন্ত্রী

/এমএন





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply