ইরানে বিলুপ্ত করা হলো ‘মোরালিটি পুলিশ’ বিভাগ

|

ইরানে বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে মোরালিটি পুলিশকে। পুলিশি হেফাজতে মাহশা আমিনির মৃত্যু ও হিজাব বিতর্কে দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়া ব্যাপক আন্দোলনের মুখেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইরানের সরকার। রোববার (৪ নভেম্বর) স্থানীয় বিভিন্ন গণমাধ্যমে উঠে এসেছে এ তথ্য। খবর এনডিটিভির।

এ নিয়ে ইরানের অ্যাটর্নি জেনারেল মোহাম্মদ জাফর মনতাজেরি বলেছেন, বিচারকার্যে মোরালিটি পুলিশের কোনো ভূমিকাই নেই। তাই মোরালিটি পুলিশকে বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। এর একদিন আগেই তিনি বলেছিলেন, নারীদের হিজাব পরার আইনটি পরিবর্তন করা হবে কিনা তা বিবেচনা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে পার্লামেন্ট এবং বিচারবিভাগ মিলিতভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

ইরানের মোরালিটি পুলিশের আনুষ্ঠানিক নাম গাস্ত-ই-এরশাদ বা পথপ্রদর্শন সংক্রান্ত পুলিশ। মূলত ইরানের কট্টোরপন্থী প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আহমাদিনেজাদের হাত ধরেই প্রতিষ্ঠা লাভ করে পুলিশ বিভাগের বিশেষ এই শাখা। যাদের কাজই হলো দেশজুড়ে শালীনতা ও হিজাবের সংস্কৃতিকে কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা। ২০০৬ সালে ইরানে মোরালিটি পুলিশ কার্যক্রম শুরু করে।

তবে সময়ের সাথে সাথে এ নিয়ে বিতর্ক ও অসন্তোষও দানা বেধে উঠছিল। যার চূড়ান্ত ফল হলো মাহশা আমিনির মৃত্যু ও হিজাব বিরোধী চরম আন্দোলন। আন্দোলন চলমান অবস্থাতেও বহু মানুষকে হত্যা ও আহত করার অভিযোগ আছে এই মোরালিটি পুলিশের বিরুদ্ধে। তাই ব্যাপক বিতর্কের মুখে অবশেষে বিলুপ্ত করা হয়েছে পুলিশের বিশেষ এই শাখাকে।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply