রোহিঙ্গা ইস্যুতে সহায়তা দিতে প্রস্তুত বিশ্বব্যাংক


চলতি অর্থবছরে বাংলাদেশের জিডিপি’র প্রবৃদ্ধি হবে ৬.৪ শতাংশ। তবে, খাদ্যের দাম বাড়ায় মূল্যস্ফীতি ৬ শতাংশ হতে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিশ্বব্যাংকের লিড ইকনোমিস্ট ড. জাহিদ হোসেন। আর, চলমান রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশকে সহায়তা করতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন ঢাকায় বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর চিমিয়াও ফান।

আজ বুধবার সংস্থার ঢাকা কার্যালয়ে ‘বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট আপডেট’ প্রতিবেদন প্রকাশ উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

এছাড়া প্রতিবেদনটিতে গুণগত কর্মসংস্থান তৈরিকে বাংলাদেশের জন্য অন্যতম চ্যালেঞ্জ হিসেবে বলেছে বিশ্বব্যাংক। পাশাপাশি জমি সংকট, বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও যোগাযোগ অবকাঠামোর অপ্রতুলতাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখছে সংস্থাটি।

রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে ঢাকায় বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর চিমিয়াও ফান এ সময় বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যা বাংলাদেশের জন্য একটি বাড়তি ও অন্যতম চাপ। এ জন্য আমরা উদ্বিগ্ন। তাদের (রোহিঙ্গা) শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও স্যানিটেশন নিশ্চিত করা অন্যতম চ্যালেঞ্জ।

চিমিয়াও ফান বলেন, এই ইস্যুতে বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশকে সহায়তা করতে প্রস্তুত। সরকার চাইলে সহায়তা দেয়া হবে।

বিশ্বব্যাংকের সহযোগী সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট এজেন্সি আইডিএ-১৮–তে ‘রিফিউজি ফান্ড’ নামে ২০০ কোটি ডলারের নতুন একটি তহবিল গঠন করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘যেকোনো দেশ প্রয়োজনে তিন বছরে সর্বোচ্চ ৪০ কোটি ডলার ঋণ পেতে পারে। বাংলাদেশও এই তহবিল পাওয়ার যোগ্য।’

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply