অন্তিম মুহূর্তে বাতিল গ্রিজমানের গোল, তিউনিসিয়ার ঐতিহাসিক জয়

|

ছবি: সংগৃহীত

দিদিয়ের দেশমের পরিকল্পনাকে কাঁচকলা দেখানোর দ্বারপ্রান্তে তখন তিউনিসিয়া। গ্রুপ ডি’র অপর ম্যাচে ডেনমার্ককে অস্ট্রেলিয়া হারিয়ে দেয়ায় শেষ ষোলোর আশা আর ছিল না দলটির। তবুও বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের হারানো আর ফরাসি কোচ দিদিয়ের দেশমের পরিকল্পনাকে কাঁচকলা দেখানো তো আর চাট্টিখানি কথা নয়! তবে তিউনিসিয়ার ঐতিহাসিক জয়ের যখন বাকি মাত্র কয়েক সেকেন্ড, তখনই আতোয়ান গ্রিজমানের গোলে সমতায় ফেরে ফ্রান্স। কিন্তু উদযাপন শেষ হওয়ার পর এই বিশ্বকাপের প্রধান কুশীলব অফ সাইড হাজির হলো। আর পরক্ষণেই বাতিল হলো গোল! নিশ্চিত হলো, ফ্রান্সকে হারিয়ে ঐতিহাসিক জয় পেয়েছে গ্রুপের তিন নম্বর দল হিসেবে বিদায় নেয়া তিউনিসিয়া।

জয় নয়তো বিদায়। এই সমীকরণকে সামনে রেখে শক্তিশালী ফ্রান্সকে ম্যাচের শুরু থেকেই চেপে ধরে তিউনিসিয়া। ফরাসি কোচ দিদিয়ের দেশম গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে তার প্রথম একাদশে রেখেছেন বেঞ্চের খেলোয়াড়দের। শেষ শোলো নিশ্চিত হওয়ায় এই ম্যাচকে বেঞ্চের খেলোয়াড়দের পরখ করার মঞ্চ হিসেবেই দেখেছেন ফরাসি কোচ। আর রাউন্ড অব সিক্সটিনের লড়াইয়ে গতবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের হারানো ব্যতীত তিউনিসিয়ার সামনে ছিল না কোনো পথ।শুরু থেকেই মুহুর্মুহু আক্রমণে ফ্রান্সের রক্ষণভাগে কাঁপন ধরিয়ে দেয় তিউনিসিয়ার খেলোয়াড়রা। ম্যাচের ৭ মিনিটেই ফ্রি কিক থেকে হেডে দারুণ গোল করে তিউনিসিয়া। কিন্তু বাধ সাধে এবারের বিশ্বকাপের সব থেকে বেরসিক অফসাইড। অফসাইডের ফাঁদে পড়ে গোলটি বাতিল হয়ে যায়।

ম্যাচেও দেখা গেছে তারই প্রতিফলনই। ফ্রান্সের রক্ষণ বেশ ক’বারই কাঁপিয়ে দিয়েছে তিউনিসিয়া। প্রথমার্ধে গোলের দেখা না পেলেও দ্বিতীয়ার্ধে ডেডলক ভাঙেন ওয়াহবি খাজরি। ম্যাচের ৫৮ মিনিটে ওয়াহবি খাজরির দারুণ ফিনিশিংয়ে এগিয়ে যায় ৪ পয়েন্ট নিয়ে শেষ ষোলো নিশ্চিতের লড়াইয়ে থাকা জালাল কাদেরির শিষ্যরা। এরপর ভারানে, ভেরেতোত এবং কোম্যানের বিপক্ষে মাঠে নেমেছেন সালিবা, রাবিও এবং কিলইয়ান এমবাপ্পে।

অন্য ম্যাচে ডেনমার্কের বিদায় নিশ্চিত করেছে অস্ট্রেলিয়ার জয়। আর গ্রুপ ডি থেকে তিউনিসিয়ার শেষ ষোলোয় যাওয়ার জন্য তাই জয় পেলেও তা যথেষ্ট হয়নি। তবে ম্যাচের অন্তিম মুহূর্তে মঞ্চস্থ হয় আরেক প্রস্থ নাটক! জটলা থেকে বল পেয়ে আতোয়ান গ্রিজমানের গোলে মনে হয়েছিল, ঐতিহাসিক জয়ের সাথে তিউনিসিয়ার ব্যবধান হয়ে রইলো কেবল ১০ সেকেন্ড ও গ্রিজমান। কিন্তু আরও একবার প্রধান ভূমিকায় চলে এলো ভিএআর! সেখানে দেখা গেলো, বল পাওয়ার আগ মুহূর্তে অফসাইডে ছিলেন খোদ গোলদাতা গ্রিজমান। তাই বাতিল হলো এই ফরাসি প্লেমেকারের এই বিশ্বকাপে করা প্রথম গোল। আর দিদিয়ের দেশমের দলকে পরাজয়ের তিক্ত স্বাদ উপহার দিয়ে কাতার বিশ্বকাপে অঘটনের আরও একটি পর্ব রচনা করে বিদায় নিলো লড়াকু তিউনিসিয়া।

/এম ই





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply