ডাক বাংলো থেকে সিরাজগঞ্জ জেলা পরিষদের হিসাবরক্ষকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

|

সিনিয়র করেসপনডেন্ট, সিরাজগঞ্জ:

সিরাজগঞ্জ জেলা পরিষদ অফিসের হিসাব রক্ষক সুরুজিৎ কুমার মুজুদারের (৪২) ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে সিরাজগঞ্জ শহরের জেলা পরিষদের ডাক বাংলো থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

সুরুজিৎ কুমার মুজুদার পাবনা পৌর এলাকার সুধির চন্দ্র মুজুমদারের ছেলে ও সিরাজগঞ্জ জেলা পরিষদ অফিসের হিসাব রক্ষক।

সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (অপারেশন) সুমন কুমার দাস বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় দিকে ঘরের ভেতরে ঝুলন্ত মরদেহ দেখে ডাক বাংলোর কেয়ারটেকার শাহন মিয়া পুলিশকে খবর দেয়। আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে দুপুরের দিকে ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করি। নিহত সুরুজিৎ কুমার মুজুদারের গলায় আঘাতের চিহ্ন ছিল। এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা ময়নাতদন্তের পর জানা যাবে।

এদিকে ঘটনার পর থেকে জেলা পরিষদের নির্বাহী প্রকৌশলী ডাক বাংলোর প্রধান গেট বন্ধ রেখেছিলেন। সাংবাদিকদের তথ্য সংগ্রহের জন্য নানা বাধা সৃষ্টি করেছেন। তিনি সাংবাদিকদের তথ্য দিতে ও ডাক বাংলোর ভেতরে প্রবেশে বাধা প্রদান করেন এবং সাংবাদিকের সাথে খারাপ আচরণ করেন। এক পর্যায়ে সাংবাদিকদের সাথে জেলা পরিষদের নির্বাহী প্রকৌশলীর কথা কাটাকাটির পর তিনি সাংবাদিকদের নিয়ে নানা বাজে মন্তব্য করেন। এ সময় ঘটনাস্থলে পুলিশ, পিবিআই ও ডিএসপির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

পরে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাবেক মন্ত্রী আলহাজ্ব আব্দুল লতিফ বিশ্বাস ঘটনাস্থলে আসলে তিনি সাংবাদিকদের তথ্য সংগ্রহের সহযোগিতা করেন। তখন সাংবাদিকরা ডাক বাংলোর ভেতরে গিয়ে দেখেন সুরুজিৎ কুমারের মৃত দেহ নিচে পড়ে আছে।

জেলা পরিষদের নির্বাহী প্রকৌশলী বলেন, আপনারা পরে পুলিশের অনুমতি নিয়ে আসেন। আপনার এই আলামত নষ্ট করার জন্য এখানে এসেছেন। ফুটেজ প্রয়োজন হলে পুলিশের কাছ থেকে নেন। ঘরের ভেতরে ঢুকতে পারবেন না।

এ বিষয়ে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাবেক মন্ত্রী আলহাজ্ব আব্দুল লতিফ বিশ্বাস বলেন, এটা একটা অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। জেলা পরিষদ ডাক বাংলোতে এই ধরনের ঘটনা কোনো দিন ঘটে নাই। প্রশাসনের লোকজন এসেছে এবং তদন্ত করে দেখছে। জেলা পরিষদের নির্বাহী প্রকৌশলীর সাংবাদিকদের সাথে দুর্ব্যবহার সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমার সামনেই তিনি এসব কথা বলেছেন। সাংবাদিকদের সাথে এমন ব্যবহার করা ঠিক হয়নি বলেও জানান তিনি।

সাংবাদিকদের সাথে খারাপ আচরণের কারণে সিরাজগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি হেলাল আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক জাকিরুল ইসলাম সান্টুর নেতৃত্বে জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদের নিকট কামরুন নাহারের বিরুদ্ধে মৌখিক অভিযোগ করেন। পরে সাংবাদিকরা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে কামরুন নাহারের অপসারণের দাবিতে মানববন্ধন করেন।

জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদ বলেন, এর আগে তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ পেয়েছিলাম। আপনাদের বিষয়ে আমি বিভাগীয় কমিশনার ও মন্ত্রণালয় বরাবর তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সুপারিশ করবো।

এটিএম/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply